‘১৮এর আগে বিয়ে নয়’ প্রতিশ্রুতি ১,৫০০ শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও শিক্ষক-শিক্ষিকার

people taking oath জাতীয় কন্যা শিশু এডভোকেসি ফোরাম, ইয়ুথ এন্ডিং হাঙ্গার-বাংলাদেশ, উইমেন এন্ড গার্লস লীড গ্লোবাল এবং ইউএসএআইড বাংলাদেশের যৌথ উদ্যোগে গত ১১ অক্টোবর, ২০১৫ তারিখে মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার জোড়পুকুরিয়া উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক কন্যাশিশু দিবস উদযাপন করে।
প্রায় ১,৫০০ শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও শিক্ষক-শিক্ষিকা প্রতিজ্ঞা করেন যে তারা ১৮ বছর এর আগে বিয়ে করবে না বা বিয়ে হতে দেবে না। এই আয়োজনে ৫০০ জন নারী শিক্ষার্থীর সঙ্গে তাদের অভিবাবকদের বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে অঙ্গীকারের ছবি নিয়ে ছবিমেলার আয়োজন করা হয়। ছবিমেলায় অংশ নেয়া শ্রেষ্ঠ ২০ ছাত্রী ও তাদের পিতামাতার হাতে পুরষ্কার ও সম্মাননা ক্রেষ্ট তুলে দেয়া হয় এবং ৮০ জন ছাত্রী ও তাদের পিতা-মাতাকে বিশেষ পুরষ্কার প্রদান করা হয়।
সারাদিনের এই আয়োজন শুরু হয়েছিল ১০০ নারী শিক্ষার্থীর সাইকেল র‌্যালীর মাধ্যমে। দিনব্যাপী এ অনুষ্ঠানের এবং ছবিমেলার উদ্বোধন করেন জাতীয় কন্যা শিশু এডভোকেসি ফোরামের সভাপতি এবং দি হাঙ্গার প্রজেক্টের গ্লোবাল ভাইস প্রেসিডেন্ট ও কান্টি ডিরেক্টর ড. বদিউল আলম মজুমদার। অনুষ্ঠানে গাংনীর আটটি ইউনিয়ন থেকে শিশুবিবাহ প্রতিরোধমূলক নাটিকা উপস্থাপন করা হয়।এছাড়াও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গাংনী উপজেলার প্রায় সকল স্কুলের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ ছিলো।
সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় কন্যা শিশু অ্যাডভোকেসি ফোরাম- মেহেরপুর জেলা শাখার সভাপতি সিরাজল ইসলাম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন গাংনী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রাহাত মান্নান, ওমেন অ্যান্ড গার্লস লিড গ্লোবালের কান্ট্রি এনগেজমেন্ট কো-অর্ডিনেটর মাহমুদ হাসান, দি হাঙ্গার প্রজেক্ট বাংলাদেশের আঞ্চলিক সমন্ময়কারী খোরশেদ আলম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লায়লা আরজুমান বানু, নারী নেত্রী নুরজাহান বেগম, বিশিষ্ট সাংবাদিক ও সংগঠক আবুল কাশেম এবং দি হাঙ্গার প্রজেক্টের এলাকা সমন্ময়কারী হেলাল উদ্দীন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।