জীবন সংগ্রামে জয়ী সবার প্রিয় ময়মনসিংহের মৌসুমী

মৌসুমী।

????????????????????????????????????

পুরো নাম ফাতেমা খাতুন মৌসুমী।  ২০০৪ সালের দিকে তিনি যখন নারায়ণগঞ্জের আদমজীতে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী।  ঠিক তখন তাদের পারিবারে নেমে আসে বিপর্যয়।  সরকারি এক সিদ্ধান্তে বন্ধ হয়ে যায় আদমজী জুট মিল, চাকরি চলে যায় সেখানে কর্মরত তার বাবার।  এক রাত্রের মধ্যেই ভাগ্যের সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে সহপাঠীদের ছেড়ে চলে আসতে হয় ময়মনসিংহের অজপাড়া গাঁয়ে।   মূহূর্তেই অচেনা হয়ে যায় মৌসুমীর পৃথিবী, বদলে যায় সকল পরিচিত দৃশ্যপট।  ঘটনার আকস্মিকতায় ভেঙে পড়ে মৌসুমীর কিশোরী মন।  কিন্তু লেখাপড়ার প্রতি তার একাগ্রতা ও অনমনীয়তার কারণে এইচএসসি পাশ করেন।  এখানেই থেমে যাওয়া নয়।  এরপর তিনি আনন্দ মোহন কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে ভর্তি হন।  প্রথম বর্ষে অধ্যয়নকালীন ২০০৮ সালে মৌসুমী ৬২তম ইয়ূথ লিডার্স প্রশিক্ষণের মাধ্যমে  ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার-এর কাজের সাথে যুক্ত হন।  প্রশিক্ষণের পর স্বেচ্ছাব্রতী উদ্যোগে তিনি কিছু একটা শুরু করার চিন্তা করেন।  এমন চিন্তা থেকে নিরক্ষরতা দূর করার লক্ষ্যে তার বাড়ির আশপাশের ২০ জন নিরক্ষর বয়স্ক নারীকে নিয়ে গড়ে তোলেন একটি বয়স্ক শিক্ষা কেন্দ্র।  মৌসুমীর ভাষ্যমতে, তার এ উদ্যোগকে প্রথম দিকে অনেকেই স্বাগত জানায়নি, বরং হাসাহাসি করেছে।  কিন্তু মৌসুমীর দৃঢ়তার কারণেই কেন্দ্রটি সফলভাবে পরিচালনা করা সম্ভব হয়েছে।

২০০৯ সালে মৌসুমী অ্যাকটিভ সিটিজেনস ফ্যাসিলিটেটর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন।  এরপর বাই-লেটারাল অ্যাক্সচেঞ্জ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে ময়মনসিংহ সদর উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে গড়ে তোলেন লেঙ্গুয়েজ ক্লাব।  ক্লাবের উদ্যোগে চলতে থাকে নিয়মিত ভাষা শিক্ষার অনুশীলন এবং নিয়মিত পাঠচক্র। এ উদ্যোগের কারণে মৌসুমী একদল ইয়ূথ লিডারের সাথে মতবিনিময়ের জন্য স্কটল্যান্ড সফরে যাওয়ার সুযোগ পান।  তার সাংগঠনিক দক্ষতা ও আকর্ষণীয় নেতৃত্বের স্বীকৃতিস্বরূপ তাকে ২০১০ সালে ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার-এর পঞ্চদশ জাতীয় সম্মেলন কমিটির যুগ্ম-আহবায়ক মনোনীত করা হয়।

স্থানীয়ভাবে পাঠচক্র, বিভিন্ন প্রতিযোগিতা, গণতন্ত্র অলিম্পিয়াড আয়োজন, ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাব, বয়স্ক শিক্ষা কেন্দ্র পরিচালনা, বিভিন্ন দিবস উদ্যাপন, ইয়ূথ লিডার্স ট্রেনিং পরিচালনায় সহায়তা ইত্যাদি কার্যক্রমে মৌসুমী অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন।

????????????????????????????????????

২০০৮ হতে এখনও পর্যন্ত মৌসুমী বিরামহীনভাবে কাজ করে চলেছেন।  একজন সাধারণ ঘরের মেয়ে হওয়ার কারণে তার চলার পথ মসৃণ ছিল না।  কিন্তু এগিয়ে যাওয়ার প্রাণান্তকর প্রচেষ্টা, টিকে থাকার প্রবল আত্মবিশ্বাস এবং প্রতিকূলতাকে চ্যালেঞ্জ করার কৌশলের কাছে কোন বাঁধাই তাকে অবরুদ্ধ করে রাখতে পারেনি।  ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার-এর প্রতি অকৃত্রিম ভালবাসা, সমাজের প্রতি নিখাদ দায়বদ্ধতা এবং কাজের প্রতি নিবেদিত মানসিকতা মৌসুমীকে পরিণত করেছে এক জনপ্রিয় ব্যক্তিত্বে।  তাই ময়মনসিংহের ইয়ূথ লিডারদের কাছে মৌসুমী একটি প্রিয় মুখ, প্রিয় নাম।।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s