বাংলাদেশ শিশু সংসদ অধিবেশন-২০১৪

‘শিশু সংসদ থেকে উঠে আসবে আগামীর নেতা’ আশাবাদ আমন্ত্রিত অতিথিদের
10264748_563346403786932_5567669343487317494_n10342498_563345433787029_2325260501473754747_n
‘শিশু সংসদ অধিবেশনের মাধ্যমে শিশুরা সংসদ ও গণতন্ত্রের প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন করতে শিখবে।’ এছাড়া এটি শিশুদের ভবিষ্যতে পেশা নির্বাচনের ক্ষেত্রেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলেও মন্তব্য করেছেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। তিনি ৭-৮ মে, ২০১৪ জাতীয় সংসদের পার্লামেন্ট মেম্বারস ক্লাবে আয়োজিত দু দিনব্যাপী বাংলাদেশ শিশু সংসদ অধিবেশন-২০১৪ এ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ মন্তব্য করেন।  জাতীয় সংসদ সচিবালয় এবং ইউএনডিপি’র সহায়তায় উক্ত অধিবেশনের আয়োজন করে আইপিডি প্রকল্প, ব্রিটিশ কাউন্সিল, সেভ দ্য চিল্ড্রেন, বাংলাদেশ শিশু একাডেমী, দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-বাংলাদেশ ও ব্র্যাক।

শিশু সংসদ অধিবেশন একটি অনন্য সুন্দর ও ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজন উল্লেখ করে ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ‘এ অধিবেশনের কার্যক্রম সম্প্রসারণ করার সুযোগ রয়েছে। সংসদ সম্পর্কে বিশেষ জ্ঞান তৈরির জন্য দেশের সকল অঞ্চলের শিক্ষা কার্যক্রমে এ ধরনের কর্মসূচি গ্রহণ করার প্রয়োজন রয়েছে।’ এ লক্ষ্যে দেশের বিভাগীয় পর্যায়ে এ অধিবেশন সম্প্রসারণ করার পাশাপাশি বিভিন্ন বিদ্যালয়ভিত্তিক শিশু সংসদ অধিবেশন আয়োজন করা যেতে পারে বলে জানান তিনি। মাননীয় স্পিকার তাঁর বক্তব্যে উপস্থিত শিশু ও তরুণদেরকে সংসদের কার্যবিধি ভালো করে আত্মস্থ করা এবং দেশের সঠিক ইতিহাস জানার আহ্বান জানান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় সংসদের সিনিয়র সচিব আশরাফুল মকবুল। বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ, বাংলাদেশে নিযুক্ত নেদারল্যান্ডস দূতাবাসের রাজনৈতিক এবং অর্থনৈতিক ফার্স্ট সেক্রেটারি হেনরিক ভ্যান অ্যাশ ভ্যান ভিজক, ইউএনডিপি’র বাংলাদেশ আবাসিক প্রতিনিধি নিল ওয়াকার প্রমুখ। এছাড়া স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইপিডি  প্রকল্পের পরিচালক ও জাতীয় সংসদের অতিরিক্ত সচিব প্রণব চক্রবর্তী।

সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ বলেন, ‘সংসদীয় গণতন্ত্র চালু রাখার জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। আর কোনো দিন যেন স্বৈরাচারী শাসকেরা ক্ষমতায় আসতে না পারে সেজন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।’ এ অধিবেশনের মাধ্যমে তরুণদের মধ্যে দক্ষ ও যোগ্য হয়ে ওঠার আকাক্সক্ষা তৈরি হবেও বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

দু দিনব্যাপী এ শিশু সংসদ অধিবেশনে সারাদেশ থেকে ১৫০ জন শিশু সংসদ সদস্য হিসেবে অংশ নিয়ে তাদের নিজ নিজ এলাকার সমস্যা ও সম্ভাবনার কথা, বিশেষ করে শিক্ষা, শিল্প, পানি, পরিবেশ, শিশু অধিকার ও প্রতিবন্ধী শিশুদের অধিকার-সহ নানা বিষয়ে আলোচনা করেন। মন্ত্রীরা সংসদ সদস্যদের উত্থাপিত বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেন।  অধিবেশনের প্রথমদিন ‘শিশু অধিকার কমিশন-২০১৪’ বিল এবং দ্বিতীয় দিন ‘শিশু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শারীরিক ও মানসিক শান্তি বন্ধকরণ বিল-২০১৪’ উত্থাপিত হলে সংসদে সরকারি ও বিরোধী দলের কণ্ঠ ভোটে তা পাস হয়।  এ অধিবেশনের মাধ্যমে উপস্থিত সকলকে মুগ্ধ করেন ক্ষুদে সংসদ সদস্যরা।  সরকারি ও বিরোধী দলের হৈ-চৈ, অকারণে ওয়াকআউট তো নয়-ই, প্রাণবন্ত এই সংসদে ছিল না কোনো বিদ্বেষমূলক কথাবার্তা।  ছিল না সময়ের হেরফের। তারুণ্যদীপ্ত এ আলোচনায় দর্শকদের ধৈর্যচ্যুতিও ঘটেনি। জাতীয় সংসদের কার্যবিধি মেনেই যাবতীয় কার্যক্রম পরিচালিত হয়ছে।

10169288_687028294752075_8392811463045172640_n 10151848_581124595342446_865204702853714031_nউল্লেখ্য, বাংলাদেশে জাতীয় যুব সংসদ গঠনের লক্ষ্যে ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে যাচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে তরুণদের মধ্যে নেতৃত্বের গুণাবলী বিকাশের লক্ষ্যে নানা ধরনের প্রশিক্ষণ, কর্মশালা, বিতর্ক ও মিনি পার্লামেন্ট-এর আয়োজন করা হচ্ছে। উদাহরণস্বরূপ, ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার-এর উদ্যোগে ১০ এপ্রিল ২০১০ রাজশাহীতে জাতীয় যুব সংসদের অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। রাজশাহী জেলার ৯০ জন যুব সাংসদ এই অধিবেশনে অংশগ্রহণ করেন।

প্রতিবেদক: সোহানুর রহমান।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s