নারায়ণগঞ্জে এ্যাকটিভ সিটিজেনসদের পরিচালিত সামাজিক উদ্যোগ প্রদর্শন ও অভিজ্ঞতা বিনিময় সভা

SAM_0744‘বিশ্বব্যাপী সংযুক্ত, স্থানীয়ভাবে সম্পৃক্ত’ এই শ্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডাররা স্থানীয় পযার্য়ে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে নানামুখী কাযক্রর্ম পরিচালনা করছে। গত ০৫ জুলাই ২০১৩ দি হাঙ্গার প্রোজেক্টের আয়োজনে নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্দিরগঞ্জ উপজেলায় এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডারদের নানা উদ্যোগ পরিদর্শন করেন বিট্রিশ কাউন্সিল ও এ্যাকটিভ সিটিজেনস এর বৈশ্বিক একদল প্রতিনিধি। এ্যাকটিভ সিটিজেনস বিশ্বব্যাপী মানুষের নেটওয়ার্কগুলোকে একত্রিত করে এবং স্থানীয় কমিউনিটির উন্নয়নে অবদান রাখে। একইসাথে এ্যাকটিভ সিটিজেনস নিজের কমিউনিটির ভিতরে ও বাইরেরর গ্রুপের সঙ্গে ধারণা ও অভিজ্ঞতাকে ভাগ করে নেয় এবং আন্ত:সাংস্কৃতিক সংলাপ ও গ্লোবাল সিটিজেনশিপের ধারণাকে সমৃদ্ধ করতে অবদান রাখে। এরই ধারাবাহিকতায় সকাল ১০ টায় সিদ্দিরগঞ্জের সফুরা খাতুন পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ‌‌“এ্যাকটিভ সিটিজেনসদের কাযক্রর্ম ও  অভিজ্ঞতা বিনিময় সভা” অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি  ও পরিদর্শক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব রবিন ডেভিস, ডাইরেক্টর প্রোগ্রামস, বিট্রিশ কাউন্সিল-বাংলাদেশ ।

এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডার নাজমুল হাসানের সঞ্চালনায় এসময় অন্যান্যদের মধ্যে অতিথি উপস্থিত ছিলেন ব্রিটিশ কাউসিল এর সোসাইটির প্রোজেক্ট কো-অর্ডিনেটর রুবাইয়া মনজুর, এ্যাকটিভ সিটিজেনস এর বৈশ্বিক প্রতিনিধি মায়ানমারের এ্যাকটিভ সিটিজেনস কর্মসূচীর সহায়ক জার্নী, নান মিয়া য়ি, জো সেন লাইন ও মারি। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন এ্যাকটিভ সিটিজেনস কর্মসূচীর সাথে সম্পৃক্ত মেন্টর ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধি ছালেহা বেগম -প্রধান শিক্ষক, গোদনাইল মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মনোয়ারা বেগম-মেন্টর ও সভাপতি বিকশিত নারী নেটওয়ার্ক ( নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখা) মো: জাহাঙ্গীর আলম- মেন্টর ও স্বেচ্ছাব্রতী প্রশিক্ষক, দি হাঙ্গার প্রোজেক্ট, শামীম রহমান- উপদেষ্টা,ন্যায়ের আলো পাঠাগার, আব্দুস সবুর- প্রধান সমন্বয়কারী, অশোক বিশ্বাস- সমন্বয়কারী, কাজী রাবেয়া এমি- সমন্বয়কারী, ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার।SAM_0760

প্রথমে পরিদর্শকরা সফুরা খাতুন পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়  প্রাঙ্গনে সামাজিক উদ্যোগের নানা ছবি ও নানা কাযর্ক্রমের সাবির্ক চিত্র নিয়ে তৈরী ডিসপ্লে বোর্ড পরিদর্শন করে। এরপর বিদ্যালয় মিলনায়তন কক্ষে শুরু হয় অভিজ্ঞতা বিনিময় সভা। শুরুতে এ্যাকটিভ সিটিজেনসরা তাদের এলাকায় গৃহিত ৪টি সামাজিক উদ্যোগ, উদ্যোগের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য, কর্ম-কৌশল, পরিচালিত নানা কর্মসূচী, বর্তমান অবস্থা, সফলতা, চ্যালেঞ্জ, উত্তোরনের উপায় এবং আগামীর ভাবনাগুলি সুনির্দিষ্টভাবে তুলে ধরে। এসময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি জনাব রবিন ডেভিস তার অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে বলেন, ‌‌‌“এ্যাকটিভ সিটিজেনস কর্মসূচী একটি বৈশ্বিক কর্মসূচী। এ কারণে যে সকল দেশে তরুণরা এ্যাকটিভ সিটিজেনস হিসেবে কাজ করছে তাদের কাযক্রর্ম সমন্ধে ধারণা নিলে দেখা যাবে ভিন্ন ভিন্ন দেশের  কাযক্রর্ম ভিন্ন ভিন্ন ধরণের। এর পেছনে মূল কারণ হচ্ছে এক এক দেশের সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও অথর্নৈতিক অবস্থার ভিন্নতা । তিনি আরো বলেন বাংলাদেশের এ্যাকটিভ সিটিজেনস অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ করছে। একটি উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে এখানে অনেক সামাজিক সমস্যা বিরাজমান, কিন্তু এ্যাকটিভ সিটিজেনসদের মতো সমাজের সকলেই এসকল সমস্যা সমাধানে কাজ করলে খুব অল্প সময়ে উন্নত একটি দেশ সৃষ্টি করা সম্ভব। রবিন নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করেন এই হিসেবে যে, তৃণমূল পযার্য়ে এ্যাকটিভ সিটিজেনসরা কত গুরুত্বপূর্ণ কাজ করছে তা জানার সুযোগ হলো। তিনি তার অভিজ্ঞতা বিনিময়ের মাঝে এ্যাকটিভ সিটিজেনসদের মাঝে জানতে চান এ সকল কাজ করতে গিয়ে তারা কি ধরণের  সমস্যার সম্মুখ্খীন হয় । তাদের সফলতাকে আরো বেগবান করতে বিট্রিশ কাউন্সিল আরো কিভাবে সহায়তা করতে পারে। রবিন মনে করে এই পরিদর্শন তার এ্যাকটিভ সিটিজেনস,বাংলাদেশ সর্ম্পকে নতুন অভিজ্ঞতা যুগিয়েছে”।SAM_0769

এরপর পরিদর্শক প্রতিনিধিদল এ্যাকটিভ সিটিজেনসদের অন্যতম উদ্যোগ ‌‌‌“বিজয় কিন্ডারগার্টেন স্কুল” এবং ‌‌‌“ন্যায়ের আলো পাঠাগার” পরিদর্শন করেন। এসময় মহিউদ্দিন আদর্শ কিন্ডারগার্টেন স্কুলে ডা: কাওসার রহমানের তত্বাবধানে এ্যাকটিভ সিটিজেনসদের নিয়মিত কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ‌‌‌“বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয়” এবং “স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচী” পরিচালিত হয়। যেখানে শতাধিক ব্যক্তি এই সেবা গ্রহণ করে। পরিদর্শক প্রতিনিধিদল এ্যাকটিভ সিটিজেনসদের মাধ্যমে কাযক্রর্মটি সম্পর্কে অবগত হয় এবং তাদেরকে উৎসাহ প্রদান করে।  SAM_0812

অনুষ্ঠান শেষে এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডার মো: জাহিদুল ইসলাম অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে বলেন, ‌‌‌“নারায়ণগঞ্জে এ্যাকটিভ সিটিজেনসদের জন্য এ ধরণের পরিদর্শন ও অভিজ্ঞতা বিনিময় ছিল প্রথমবারের মতো। আমাদের এই অভিজ্ঞতা সকলের মধ্যেই নতুন উৎসাহ ও উদ্দীপনা যোগাবে এবং চলমান সামাজিক উদ্যোগগুলি এগিয়ে নেবার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে”। এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডার এস.এম. বিজয়  ও কনক বলেন, “এই দ্বিপাক্ষিক অভিজ্ঞতা বিনিময়ের মধ্য দিয়ে আমরা একদিকে যেমন মায়ানমারে পরিচালিত এ্যাকটিভ সিটিজেনস কর্মসূচী সম্পর্কে জানতে পেরেছি, নতুনভাবে সমৃদ্ধ হয়েছি তেমনি আমাদের কাযর্ক্রম সম্পর্কেও তাদেরকে জানতে পেরেছি। এটা আমাদের জন্য সত্যিই এক ভিন্ন অভিজ্ঞতা ও স্বীকৃতি। আমরা এ্যাকটিভ সিটিজেনস সিদ্দিরগঞ্জ কমিউনিটির পক্ষ থেকে ব্রিটিশ কাউসিল ও দি হাঙ্গার প্রোজেক্ট-বাংলাদেশকে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি”।

অনুষ্ঠানটি সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে আয়োজনে সাবির্ক ভূমিকা রাখেন এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডার জাহিদুল ইসলাম, নাজমুল হাসান, এস.এম. বিজয়, আশিক, সিহান রাজ্জাক সঞ্চয়, মাহমুদা, কাওসার,মৌ প্রমূখ। এটি সাবির্কভাবে সমন্বয় করেন দি হাঙ্গার প্রোজেক্ট-ঢাকা অঞ্চলের আঞ্চলিক সমন্বয়কারী মূর্শিকুল ইসলাম শিমুল।SAM_0824

অভিজ্ঞতা বিনিময় সভায় এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডারদের উল্লেখযোগ্য যেসকল কাযর্ক্রম গুরুত্ব পায়:

দি হাঙ্গার প্রোজেক্টের উদ্যোগে এবং বিট্রিশ কাউন্সিলের সহযোগিতায় ২০১১ সালের অক্টোবর মাসে নারায়ণগঞ্জ জেলায় ২টি ব্যাচে এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডারশিপ ট্রেনিং অনুষ্ঠিত হয়, যেখানে ৭৮ জন শিক্ষার্থী (ছেলে ৫১ ও মেয়ে ২৭) অংশগ্রহণ করে। প্রশিক্ষণের পর সবসর্ম্মতিক্রমে কমিউনিটিতে ৪টি সামাজিক উদ্যোগ গৃহিত হয় । উদ্যোগগুলি হলো “নিরক্ষরতা দূরীকরণ”, “বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ”, “ইংরেজি ভাষা শিক্ষা কাযর্ক্রম” ও “পাঠাগার স্থাপন”।

  • “নিরক্ষরতা দূরীকরণ” সামাজিক উদ্যোগের আওতায় ১২ টি গণশিক্ষা কেন্দ্রের মাধ্যমে ২৭০ জন নিরক্ষর ব্যক্তিকে স্বাক্ষরজ্ঞান সমপন্ন করা সম্ভব হয়েছে , পথশিশুদের শিক্ষাদানের লক্ষ্যে ২টি শিশু বিদ্যানিকেতন গড়ে উঠেছে । এছাড়া নানামুখী সচেতনতা সৃষ্টিতে কমিউনিটিতে বিভিন্ন কমর্সূচী পরিচালিত হচ্ছে।
  • “বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ” সামাজিক উদ্যোগের আওতায় ইতোমধ্যে ৫টি বাল্যবিবাহ বন্ধ হয়েছে এবং সচেতনতা সৃষ্টিতে উঠান বৈঠক, পথনাটক প্রদর্শন ও বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়মিত প্রচারাভিযান পরিচালিত হচ্ছে।
  • “ইংরেজি ভাষা শিক্ষা” কাযর্ক্রমের আওতায় ২টি ইংলিশ ল্যাংগুয়েজ ক্লাব গঠিত হয়েছে । ইতোমধ্যে ১টি ক্লাবে ২৭ ক্লাস সম্পন্ন হয়েছে । একইসাথে কম্পিউটার বিষয়ে মৌলিক ধারণা বিষয়ক ১০টি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
  • “পাঠাগার স্থাপন” সামাজিক উদ্যোগের আওতায় ন্যায়ের আলো ও কদমতলি নামে ২টি পাঠাগার স্থাপিত হয়েছে, প্রত্যেকটিতে প্রায় ২ শত বই সংগৃহিত রয়েছে। এখানে নিয়মিত বিভিন্ন বিষয়ে নিয়মিত পাঠচক্র অনুষ্ঠিত হয়, সমন্বয় সভা, বিভিন্ন জাতীয় দিবস উদযাপন, আতর্মানবতার সেবায় নানামূখী কর্মকান্ড পরিচালনা করা হয়।

এছাড়াও নারায়ণগঞ্জের এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডাররা নিজেদের উদ্যোগে স্থানীয় নানা ইস্যূতে সচেতনতা সৃষ্টিমূলক বিভিন্ন কমর্সূচী পরিচালনা করে থাকে। সামাজিক উদ্যোগের সাথে সংশ্লিষ্ট এই কাযর্ক্রমগুলি পরিচালনা ও বাস্তবায়নে সামাজিক উদ্যোগের মেন্টররা (উপদেষ্টা) সহায়কের ভূমিকা পালন করেন। এসকল কাযর্ক্রমে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, অভিভাবক ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ যুক্ত থাকেন এবং সাধ্যমত সহযোগিতা প্রদান করে থাকেন।

প্রতিবেবদন প্রণয়নে: অশোক বিশ্বাস

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s