ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার সড়াইলে অনুষ্ঠিত হলো জমজমাট গণিত উৎসব

SAM_6363‘‘গণিত নিয়ে খেলা কর , বিশ্বটাকে জয় কর’’ শ্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার- শাহবাজপুর ইউনিয়ন ইউনিট ও এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডারদের উদ্যোগে গত ০৫ এপ্রিল ২০১৩ ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার সড়াইল উপজেলার শাহবাজপুর বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে জমজমাট এক গণিত উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ৯ টায় জাতীয় সংগীত ও গণিতের সূচনা সংগীতের মধ্য দিয়ে শুরু হওয়া অর্ধদিনব্যাপী এ অলিম্পিয়াডে এলাকার ১৩ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রাইমারী, জুনিয়র ও সেকেন্ডারী পর্যায়ের (৩য়-১০ম শ্রেণী) প্রায় দুই হাজার পাচঁশত জন শিক্ষার্থী ছাড়াও শিক্ষক, অভিভাবক ও নানা পর্যায়ের ব্যক্তিবর্গ অংশগ্রহণ করেন। সকাল ৭টা থেকেই উপজেলার দূর-দূরান- থেকে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীরা আসতে থাকে উৎসব অঙ্গনে। অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে ১০ টাকা রেজিস্ট্রেশন ফি’র বিনিময়ে রেজিস্ট্রেশন আয়োজনের কয়েকদিন আগেই সম্পন্ন করা হয়। উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্ভোধন ঘোষনা করেন ব্রাহ্মণবাড়ীয়া-২ আসনের মানীয় সংসদ সদস্য এডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা। ‘গণিত শেখো, স্বপ্ন আঁকো’, ‘গণিত বিজ্ঞানের ভাষা, বিজ্ঞানী যদি হতে চাও, গণিত শেখা শুরু করে দাও’, ‘গণিত কঠিন নয়, শুধুই মজা’, ‘গণিত বোঝে যে, বুদ্ধিমান সে’, প্রভৃতি আহ্‌বানে মুখরিত ছিল চারিদিক। এ আয়োজনের অন্যতম উদ্দেশ্য ছিল শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে গণিত সমপর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করা, গণিত সমপর্কে ভয় দূর করা এবং গণিতে তাদের আগ্রহী করে তোলা।

উদ্বোধনী পর্বে গণিত উৎসব উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ও শাহবাজপুর বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়র প্রধান শিক্ষSAM_6293ক মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপসি’ত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়ীয়া-২ আসনের মানীয় সংসদ সদস্য এডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা। এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপসি’ত ছিলেন সড়াইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনিসুজ্জামান খান, শাহবাজপুর বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়র ব্যবস’াপনা পরিষদের সভাপতি মোহাম্মদ গোলাম মোস-ফা ও দি হাঙ্গার প্রজেক্টের জেলা সমন্বয়কারী আব্দুল হালিম। অনুষ্ঠানের শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য রাখেন দি হাঙ্গার প্রজেক্টের জেলা সমন্বয়কারী আব্দুল হালিম। আমন্ত্রিত অতিথিরা ব্যতিক্রমধর্মী এই আয়োজনের জন্য আয়োজদের ধন্যবাদ জানিয়ে তাদের বক্তব্যে বলেন, মানুষের প্রয়োজনেই গণিত সৃষ্টি হয়েছে, গণিত মুখস’ করা যায় না, বুঝতে হবে। তারা নিজেদের অভিজ্ঞতা বিনিময়ের পাশাপাশি গণিতের গুরুত্ব তুলে ধরে বলেন, মানুষের জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন- গণিতের সর্ম্পক রয়েছে এবং সভ্যতা দাড়িয়ে আছে। শিক্ষার্থীদের গণিতভীতি দূর SAM_6367করে সামনের দিকে এগিয়ে যাবার আহবান জানান। একইসাথে উল্লেখ করেন বিজ্ঞানের অগ্রযাত্রায় সবচেয়ে বেশি অবদান গণিতের, তাই নিয়মিত এর চর্চা করতে হবে নিয়মিত। এরকম গণিত উৎসব আয়োজনের মধ্য দিয়ে গণিত ভীতি দূর করা সম্ভব। এই উৎসবের মধ্য দিয়ে শিক্ষার্থীদের গাণিতিক মেধার উৎকর্ষ সাধন ঘটবে এবং প্রকৃত মেধাবীরা বেরিয়ে আসবে। এসময় গণিত ভীতি দূর করতে অভিভাবকদের সচেতনতা সৃষ্টি এবং প্রতি বছর গণিত উৎসব আয়োজনের আহ্বান জানান।

উদ্বোধনী পর্বের পর ৩টি ক্যাটাগরীতে ৫০ মিনিটের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষা শেষে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে অংশগ্রহণকারীদের পরিচিতি ও বন্ধুত্বপর্ব, গণিতের উপর শিক্ষার্থীদের প্রশ্নোত্তর, আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্িঠত হয়। বুদ্ধিদীপ্ত আর মজার মজার প্রশ্ন। সঙ্গে মাদক, মিথ্যা ও মুখস’কে ‘না’ বলার অঙ্গীকার। গণিতকে ভালোবেসে নানা প্রশ্ন আর অঙ্গীকারে শিক্ষার্থীদের সরব উপসি’তিতে জমজমাট হয়ে ওঠে উৎসব অঙ্গSAM_1691ন। গণিত বিশেষজ্ঞ হিসেবে উপসি’ থেকে শিক্ষার্থীদের প্রশ্নোত্তর পর্বে সহায়তা করেন আব্দুল কুদ্দুস, দেবব্রত চক্রবর্তী, মোশারফ হোসেন এবং সরোজ দেবনাথ।

পুরষ্কার বিতরণী ও সমাপণী পর্বে গণিত উৎসব উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ও শাহবাজপুর বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়র প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ ও শিক্ষাবিদ ড. আজিজ আহমেদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট সমাজসেক এডভোকেট মোকাররম জাহান, দি হাঙ্গার প্রজেক্টের জেলা সমন্বয়কারী আব্দুল হালিম, দৈনিক কুরুলিয়ার নির্বাহী সম্পাদক সাদাত হোসাইন, শাপলা মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক এস. এম. শাহীন, সবশেষে পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে তিনটি ক্যটাগরীতে চ্যাম্পিয়ন (৫ জন করে) এবং চ্যাম্পিয়ন অব দি চ্যাম্পিয়নস্‌ (১ জন করে) হিসেবে মোট ১৮ জনকে পুরস্কৃত করা হয়। প্রাইমারী ক্যটাগরীতে চ্যাম্পিয়ন অব দি চ্যাম্পিয়নস্‌ হওয়ার গৌরব অর্জন করে লতিফ মোস-ারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এর রুপালী খানম, জুনিয়র ক্যটাগরীতে চ্যাম্পিয়ন অব দি চ্যাম্পিয়নস্‌ হয়েছে শাহবাজপুর বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ফারজানা আক্তার এবং সেকেন্ডারী ক্যটাগরীতে চ্যাম্পিয়ন অব দি চ্যাম্পিয়নস্‌ হয়েছে শাহবাজপুর বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সৈয়দ ফুয়াদ আসাদ। এছাড়াও অংশগ্রহণকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্য থেকে গড় নম্বরের ভিত্তিতে প্রতি ক্যটাগরীতে শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান হিসেবে নির্বাচিত তিনটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যথাক্রমে লতিফ মোস-ারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং শাহবাজপুর বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়। উৎসব শেষে গাণিতিক মেধার উৎকর্ষ সাধন এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ভিত্তিক নিয়মিত গণিত চর্চার লক্ষ্যে গণিত উৎসব উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক গোলাম আলীকে আহবায়ক করে SAM_6260১৫ সদস্য বিশিষ্ট গণিত ক্লাব গঠন করা হয়। অনুষ্ঠানটি সার্বিকভাবে সঞ্চালনা করেন ইয়ুথ একটিভিষ্ট মোস-াক আহমেদ ও ইয়ুথ মোবিলাইজেশন ইউনিটের অশোক বিশ্বাস।

অনুষ্ঠানটির সার্বিক সমন্বয় করেন ইয়ুথ একটিভিষ্ট শামীম আহমেদ। এছাড়াও আয়োজনের ক্ষেত্রে সহায়তা করেন ইয়ূথ লিডার তারভীর, মাহবুব, ফয়সাল, সালমান, মিশু, আখী, রুবেল, তিন্নী, শুক্লা, সাথী, বিকাশ, ইমরান প্রমূখ। উৎসব শেষে আয়োজক ও বিজয়ীদের চোখে-মুখে উজ্জ্বল দীপ্তি আর সামনে এগিয়ে যাবার আত্মবিশ্বাস ছিল অন্যতম লক্ষ্যনীয় বিষয়। যেন নতুন ভাবেই উজ্জীবিত হলো সকল ইয়ূথ সদস্যরা। এ ধরনের অলিম্পিয়াড আয়োজন করতে পেরে তারা অত্যন- আনন্দিত এবং প্রতিবছর এই আয়োজনের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে চায়। পরিশেষে উৎসবের সমাপ্তি ঘোষণা করেন গণিত উৎসব উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক মোহাম্মদ আলী। পুরো অনুষ্ঠানের মিডিয়া পার্টনার ছিল ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে প্রকাশিত দৈনিক কুরুলিয়া।
রিপোর্টটি তৈরী করেছেন অশোক বিশ্বাস

Advertisements

One comment

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s