সম্পাদকীয়

সম্পাদকীয়

ড. বদিউল আলম মজুমদার
ছাত্র-ছাত্রীদের স্বেচ্ছাব্রতী নেতৃত্বে ক্ষুধা-দারিদ্র্র্যমুক্ত ও আত্মনির্ভরশীল বাংলাদেশ সৃষ্টির প্রত্যাশায় ১৯৯৫ সাল থেকে ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার কাজ করছে। এটি বাংলাদেশের জন্য সম্ভাবনায় বিশ্বাসী একটি সামাজিক আন্দোলন। এ আন্দোলন পরিচালিত হচ্ছে সামাজিক দায়বদ্ধতার ভিত্তিতে। তরুণদের আত্মবিকাশ ও সমাজ উন্নয়নের ক্ষেত্রে রেখে চলেছে বলিষ্ঠ পদক্ষেপ। এখন সারা দেশে এটি অন্যতম একটি স্বেচ্ছাব্রতী আন্দোলনে রুপ নিযেছে এবং গণকেন্দ্রিক উন্নয়ন প্রচেস্টার অংশ হিসেবে ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে।

‘বিশ্বব্যাপী সংযুক্ত, স’ানীয়ভাবে সম্পৃক্ত’ এই শ্ল্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে ব্রিটিশ কাউন্সিল ও দি হাঙ্গার প্রজেক্ট- এর অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে ২০০৯ সাল থেকে এই তরুণদেরকে যুক্ত করে শুরু হয়েছে এ্যাকটিভ সিটিজেনস কর্মসূচী। এই কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে সারাদেশে গড়ে উঠছে একদল তরুণ নেতৃত্ব। যারা এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডারশিপ ট্রেনিং-এর মাধ্যমে নেতৃত্ব, সামাজিক দায়বদ্ধতা, স’ানীয় উন্নয়ন, সামাজিক আন্দোলন ইত্যাদি নানামুখী বিষয়ে প্রশিক্ষিত হচ্ছে। প্রশিক্ষিত এসকল তরুণেরা হাতে নিচ্ছে নানামুখী সামাজিক উন্নয়ন উদ্যোগ এবং সম্পৃক্ত হচ্ছে স’ানীয়ভাবে। স’ানীয় উন্নয়নে অবদান রাখার পাশাপাশি তারা অনলাইন ও দ্বিপাক্ষিক অভিজ্ঞতা (এক্সচেঞ্জ ভিজিট) বিনিময়ের মাধ্যমে বৈশ্বিক নেটওর্য়াকের সাথেও সম্পৃক্ত হচ্ছে। কিন’ সেই অর্থে এই তরুণদের জাতীয় নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে নিজেদের মতামত, প্রত্যাশা ও তার বাস-বায়ন গুলি তুলে ধরার সুযোগ সৃষ্টি হয়নি। এই ভাবনা থেকেই গত ০২-০৩ মার্চ ২০১২ ব্রিটিশ কাউন্সিল মিলনায়তনে দুই দিনব্যাপী এ্যাকটিভ সিটিজেন এচিভার্স সামিট বা সফল সক্রিয় নাগরিকদের মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হয়। আশার জায়গা হল এখানে ছেলে-মেয়ে এবং দেশ-জাতি নির্বিশেষে সকলে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করার অভিজ্ঞতা ও সুযোগ পেয়েছে। এ বছরের কর্মসূচির মূল উদ্দেশ্য ছিল গত তিন বছরে এই কর্মসূচির সাথে সমপৃক্ত তরুণ-তরুণীদের সাফল্যের গাঁথা তুলে ধরা, দেশীয় ও আন-র্জাতিক বিশেষজ্ঞদের সাথে পরিচিত হওয়ার সুযোগ করে দেয়া, দর্শকদের সাথে তারুণ্যের সফলতা ও শক্তির আনন্দকে ভাগ করে নিয়ে সে সাফল্যকে উদযাপন করা এবং সর্বোপরি তারুণ্যকে সক্রিয় নাগরিক হওয়ার অনুপ্রেরণা যোগানো ও সাফল্যের স্বপ্ন দেখানো। বর্তমানে প্রচলিত প্রযুক্তি, ধ্যান-ধারণা ও চিন-া-ভাবনা দ্বারা কিভাবে দেশের তরুণ প্রজন্মকে সুনাগরিক হওয়ার যজ্ঞে সংযোজন করা যায় ও সম্ভাবনাময় একটি বাংলাদেশ গড়ে তোলা যায় তা নিয়ে ভাবাই ছিল এই কর্মসূচির মূল উদ্দেশ্য। সারা দেশ থেকে প্রায় দেড় শ তরুণ এবং দেশ ও বর্হিবিশ্বের বেশ কয়েকজন বরেণ্য ব্যক্তিত্ব এই মিলনমেলায় অংশগ্রহণ করে। মেলায় অংশগ্রহণকারী তরুণেরা সবাই যারা নিজেদের সর্বোচ্চ বিকাশ ও বিভিন্ন ধরনের সমাজ উন্নয়নমূলক কাজের সঙ্গে জড়িত।

এই মিলনমেলার মাধ্যমে আমাদের জাতীয় নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে তরুণদের মতামত ও প্রত্যাশাগুলি তুলে ধরার ক্ষেত্রে এটি ছিল সূচনা প্রচেষ্টা মাত্র। তবে এই ধরনের স’ানীয় সম্পৃক্ততার অভিজ্ঞতা, জাতীয় নীতিনির্ধারকদের অংশগ্রহণ, বৈশ্বিক অভিজ্ঞতা বিনিময় প্রচেষ্টা যদি অব্যাহত থাকে, তাহলে আমাদের তরুণেরা নিজেদেরকে বিকশিত, সচেতন ও সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠবে এবং দেশকে একটি মর্যাদাপূর্ণ ভবিষ্যতে নিয়ে যেতে পারবে। সকলের সমর্থন, সক্রিয় অংশগ্রহণ ও নেতৃত্বের উপরই আন্দোলনের ভবিষ্যত নির্ভর করছে।

এ্যা ক টি ভ  সি টি জে ন স  এ চি ভা র্স  সা মি ট  ২ ০ ১ ২
বাংলাদেশ তরুণ সংসদ সংক্রান- খবরাখবর
কর্মশালা ও ইউনিট গঠনের খবর
পাঠচক্রের সংবাদ
ফলোআপ ও সমন্বয় সভা সংক্রান্ত- সংবাদ
বিভিন্ন প্রতিযোগিতা বিষয়ক সংবাদ
দিবস উদযাপন বিষয়ক সংবাদ
আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন
সামাজিক সচেতনতা সৃষ্টিতে দুর্জয় তারুণ্য
প্রচারাভিযান বিষয়ক সংবাদ
বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ বিষয়ক সংবাদ
প্রশিক্ষণ বিষয়ক সংবাদ
সাহিত্য পাতা
ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গারের কর্ম-কৌশল-২০১২
তারুণ্যের ভবিষ্যৎ বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ
বিবিসি জানালার ইংরেজী ভাষা শিক্ষা বিষয়ক কিছু কথা….

 

 

Advertisements