প্রশিক্ষণ বিষয়ক সংবাদ

দুপুরে পাউরুটি কলা খেয়ে অনুষ্ঠিত হলো ইয়ূথ লিডার্স ট্রেনিং
৫টি ইউনিটের ৩০ জন অংশগ্রহণকারী নিয়ে নওগার পত্নীতলা উপজেলার ঐতিহাসিক দিবর দিঘী পাড়ের যমুনায় অনুষ্ঠিত হয় ৩১১তম ইয়ূথ লিডার্স ট্রেনিং। হিন্দু, ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠী এবং যারা রোজা রাখতে পারে না এমন ১৮ জন অংশগ্রহণকারী দুপুরে শুধুমাত্র সামান্য পাউরুটি এবং কলা খেয়ে সফলতার সাথে প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করে। ইয়ুথ এন্ডিং হাঙ্গারের নব দিগন-, সুরভী, শাপলা, শিহাড়া এবং নিরমইল ইউনিয়ন ইউনিটের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত প্রশিক্ষণটি অনেক দিন ধরে অনুষ্ঠিত হবার কথা থাকলেও যখন প্রায় অসম্ভব ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায় তখন গত ৮ আগষ্ট ইউনিট কো-অর্ডিনেটর এবং এ্যাকটিভ সিটিজেনস ফ্যাসিলিটেটর শাহিনুর আলম শিমু ও সোহেল রানা এবং ইয়ূথ লিডার অলক, শারমিন এবং কেকার ঐতিহাসিক সিদ্ধানে-র ফলে রোজাদাররা যথারীতি না খেয়ে এবং যারা রোজাদার নয় তারা শুধুমাত্র কলা পাউরুটি খেয়ে ট্রেনিং নেয়ার ঘোষণা দেয়। ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গারের এককালের তুখোড় এ্যাক্টিভিস্ট মাহমুদ হাসান রাসেল প্রথম দিন উপস্থিত থেকে ৬ বছর পূর্বে ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গারের সোনালী দিনের স্মৃতিচারণ করেন এবং অংশগ্রহণকারীদের শুভকামনা জানান। প্রশিক্ষণ আয়োজনে খায়রুল, রায়হান, আঃ কাদের, লিপি, জান্নাত, মিলন এবং উজ্জীবক/ভিটিআর মনিরুল ইসলাম সার্বিক ভূমিকা পালন করেন। প্রশিক্ষণটি পরিচালনা করছেন ইয়ূথ এ্যাক্টিভিস্ট শাহিনুর আলম শিমু, সোহেল রানা, ইয়ূথ লিডার অলক, শারমিন এবং কেকা। আয়োজক এবং সহায়কদের সাথে ভিটিআর মনিরুল ইসলাম ও এলাকা সমন্বয়কারি হিসেবে আছির উদ্দীন এবং মাহমুদ হাসান রাসেল সার্বক্ষণিক গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন।
রিপোর্ট: মোঃ আছির উদ্দীন

ইয়ূথ লিডার্স প্রশিক্ষণের খবর
ক্ষুধামুক্ত, আত্মনির্ভরশীল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে একদল তরুণ-তরুণীর মধ্যে আত্মজিজ্ঞাসা ও আত্মোপলব্ধি সৃষ্টির মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয় ও স্বেচ্ছাব্রতী ইয়ূথ লিডার হিসেবে অনুপ্রাণিত, সংগঠিত ও ক্ষমতায়িত করার লক্ষ্যে ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার-বাংলাদেশ ১৯৯৫ সাল থেকে ইয়ূথ লিডার্স প্রশিক্ষণ পরিচালনা করে আসছে । এরই ধারাবাহিকতায়  জুন থেকে ডিসেম্বর ২০১১ পর্যন- দুইটি  প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়। প্রশিক্ষণের সংখ্যাতাত্ত্বিক বিবরণ নিম্নে উস্থাপিত হলো:

অনুষ্ঠিত হবার তারিখ স্থানের নাম অংশগ্রহণকারীর সংখ্যা সহায়ক
ছাত্রী ছাত্র
১০-৭-২০১১ নোহালী, কচুয়া, গঙ্গাচড়া, রংপুর ১৬ জন ২১ জন

রাদিফ, রাসেল, হাসান,

মিজান, জাকির

২২-০৮-২০১১ দিবরদিঘী, পত্নীতলা, নওগাঁ ৭ জন ২৬ জন

রাসেল, আছির, শাহিনুর আলম শিমু, সোহেল রানা, অলক,

শারমিন, কেকা, ভিটিআর মনিরুল ইসলাম।

এ্যাকটিভ সিটিজেনস সহায়ক রিফ্রেসার্স প্রশিক্ষণ সম্পন্ন
২৪-২৭ জুন ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা ও প্রাণচাঞ্চল্যের মধ্য দিয়ে ঢাকার উদ্দীপন মিলনায়তনে এ্যাকটিভ সিটিজেনস সহায়ক রিফ্রেসার্স প্রশিক্ষণ সফলভাবে সম্পন্ন হয়। এতে এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডারশিপ ট্রেনিং এর জন্য তৃতীয় পর্বে মনোনীত ২০ এলাকার ২০ জন প্রতিনিধি, দি হাঙ্গার প্রজেক্টের ২ জন কর্মীসহ ৩৩ জন সহায়ক স্বত:স্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন। যার মধ্যে নারী ছিলেন ১০ জন। ৪ দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত এই রিফ্রেসার্স প্রশিক্ষণের শুভ উদ্বোধন করেন ব্রিটিশ কাউন্সিলের সৈয়দ মাসুদ হোসেন  এবং দি হাঙ্গার প্রজেক্টের উপ-পরিচালক (অর্থ ও প্রশাসন) স্বপন কুমার সাহা। উলেখ্য প্রশিক্ষণটি পরিচালনা করেন দি হাঙ্গার প্রজেক্ট কর্মী জমিরুল ইসলাম, ব্রিটিশ কাউন্সিলের নাজমুল হক, দি হাঙ্গার প্রজেক্ট কর্মী তুহিন আফসারী ,তনুজা কামাল, মাহমুদ হাসান রাসেল এবং অশোক বিশ্বাস। প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠানে দি হাঙ্গার প্রজেক্টের গোবাল ভাইস প্রেসিডেন্ট ও কান্ট্রি ডিরেক্টর ড. বদিউল আলম মজুমদার, উপ-পরিচালক (কর্মসূচি) নাছিমা আক্তার জলি, উপ-পরিচালক (অর্থ ও প্রশাসন) স্বপন কুমার সাহা, সংগঠক  তাজিমা মজুমদার উপস্থিত থেকে প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে সনদপত্র বিতরণ করেন। প্রশিক্ষণ ব্যবস্থাপনায় ভূমিকা রাখেন ইয়ূথ মোবিলাইজেশন ইউনিটের জি, এম, শোয়েব আহমেদ, কাজী রাবেয়া এমি এবং মামুনুর রশীদ রাদিফ ।
রিপোর্ট: অশোক বিশ্বাস

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে ইয়ূথ ও উজ্জীবকদের যৌথ উদ্যোগে ২৭০তম সেলাই প্রশিক্ষণের উদ্বোধন
৪ জুলাই মাসব্যাপী এই প্রশিক্ষণের উদ্বোধন করা হয় চাইল্ড হেভেন প্রি-ক্যাডেট ও হাইস্কুলে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা উজ্জীবক ফোরামের আহবায়ক আইয়ুব আলী মুন্সী, বিকশিত নারী নেটওয়ার্কের জেলা সভানেত্রী মনোয়ারা বেগম, দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-বাংলাদেশ এর জেলা সমন্বয়কারি মোঃ জিল্লুর রহমান, মনিরুজ্জামান সরকার, মোস্তাফিজুর রহমান মুক্তা, স্থানীয় ইয়ূথ লিডার ও এ্যাকটিভ সিটিজেনস ফ্যাসিলিটেটর মোঃ জিল্লুর রহমান, ডলি প্রমূখ। ৩ আগস্ট আনুষ্ঠানিকভাবে প্রশিক্ষণের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।
রিপোর্ট: মোঃ জিল্লুর রহমান

এ্যাকটিভ সিটিজেনস সহায়ক প্রশিক্ষণ সম্পন্ন
১৩-১৭ আগস্ট ঢাকার উদ্দীপন প্রশিক্ষণ মিলনায়তনে এ্যাকটিভ সিটিজেনস সহায়ক প্রশিক্ষণ সফলভাবে সম্পন্ন হয়। এতে এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডারশিপ ট্রেনিং এর জন্য তৃতীয় পর্বে মনোনীত ৪০ টি কর্মসূচী এলাকার সাথে সম্পৃক্ত ৩২ জন প্রতিনিধি, দি হাঙ্গার প্রজেক্টের ৩ জন কর্মীসহ মোট ৩৫ জন সহায়ক স্বত:স্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন। যার মধ্যে নারী ছিলেন ৭ জন। ৫ দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত এই প্রশিক্ষণের শুভ উদ্বোধন করেন দি হাঙ্গার প্রজেক্ট এর উপ-পরিচালক (কর্মসূচি) নাছিমা আক্তার জলি এবং ব্রিটিশ কাউন্সিলের সৈয়দ মাসুদ হোসেন। উল্লেখ্য প্রশিক্ষণটি পরিচালনা করেন দি হাঙ্গার প্রজেক্ট কর্মী জমিরুল ইসলাম, তুহিন আফসারী, আব্দুস সবুর, অশোক বিশ্বাস, কাজী রাবেয়া এমি, পরমা কন্যা এবং ব্রিটিশ কাউন্সিলের প্রোগ্রাম ম্যানেজার নাজমুল হক । এছাড়াও প্রশিক্ষণে বিশেষ পর্যবেক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  ব্রিটিশ কাউন্সিলের রুবাইযা মনজুর । প্রশিক্ষণ ব্যবস্থাপনায় ভূমিকা রাখেন ইয়ূথ মোবিলাইজেশন ইউনিটের মামুনুর রশীদ রাদিফ।
রিপোর্ট: অশোক বিশ্বাস

ইয়ূথদের উদ্যোগে ৪র্থ ও ৫ম ব্যাচের কম্পিউটার প্রশিক্ষণ সফলভাবে সমাপ্ত
৯ সেপ্টেম্বর  শুক্রবার সকাল ৯ টায় ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার ও এ্যাকটিভ সিটিজেনস কটিয়াদী উপজেলা ইউনিট ও লাইফ লাইন কম্পিউটার একাডেমীর যৌথ উদ্যোগে মসূয়া ইউনিয়নের মসূয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-বাংলাদেশ এর সহযোগিতায় একমাসব্যাপী কম্পিউটার প্রশিক্ষণে মসূয়া ইউনিয়নের ৪র্থ ব্যাচ ও বানিয়াগ্রামের ৫ম ব্যাচের সমাপনী ও সার্টিফিকেট বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সত্যজিৎ রায় স্মৃতি পাঠাগারের উপদেষ্টা ও বিশিষ্ট সমাজসেবক জনাব ইসহাক খান। তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, “আমরা স্বপ্ন নিয়ে ফেরী করার সফল ব্যক্তিদেরকে সব সময় সহযোগিতা করবো ও ডিজিটাল বাংলাদেশের সৈনিক হিসেবে গড়ে তোলার মানসে এ লাইফ লাইন একাডেমীকে সার্বিক সহযোগীতা করে যাবো”। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মসূয়া উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য জনাব পারভেজ আহম্মেদ (শামীম) ও মসূয়া ইউনিয়ন সমন্বয়কারী হাজেরা খাতুন। এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন  ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার ও এ্যাকটিভ সিটিজেনদের কটিয়াদী উপজেলা সমন্বয়কারী জনাব মোজাম্মেল হক। এ প্রশিক্ষণগুলো সফল করতে যারা অগ্রণী ভূমিকা রেখেছেন তারা হলেন খাদিজা আক্তার দেশী, দাড়িওয়ালা সুমন পরদেশী, ফৌজিয়া খানম, সামিয়া খানম, আমিনা, হালিমা, শফিকুল ইসলাম, শারমিন সুলতানা, সুমন খান, নিগার সুলতানা, নাজমুল ইসলাম, মসুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের দপ্তরী নূরু ভাই, প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম, পরিচালনা কমিটির সদস্যবৃন্দ,স্থানীয় সমাজসেবক ইসহাক খান ও দলিল লেখক নূরুল হক। সবশেষে এক আকর্ষণীয় সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় মুখরিত করা হয় মসূয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০৪নং কক্ষকে। ইয়ূথ লিডার শফিকুল ইসলাম এর গিটারের সুরে মুখরিত হন সকল ছাত্র-ছাত্রী। প্রধান অতিথি ও অন্যান্য অতিথি কর্তৃক সার্টিফিকেট বিতরণ করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে মসূয়া ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগণ, অভিভাবক, গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, সাংস্কৃতিক কর্মী, সাংবাদিক ও উৎসুক জনতা অংশগ্রহণ করেন। এ প্রশিক্ষণটি পরিচালনা করেন মোজাম্মেল হক, হাকিকুল ইসলাম, শফিকুল ইসলাম ও ওবায়দুল্লাহ আকন্দ ভূবন।
রিপোর্ট: মোজাম্মেল হক

Advertisements