রংপুরের চতরায় এ্যাকটিভ সিটিজেনসদের ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাব

রংপুরের চতরাই এ্যাকটিভ সিটিজেনসদের ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাব

রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার চতরা ইউনিয়ন,২০১১ সালের১২-১৫ সেপ্টেম্বর তারিখ পর্যন- অনুষ্ঠিত হয় ৩১৫তম এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডারশীপ ট্রেনিং।এই প্রশিক্ষণে অংশগ্রহন করে মোট ৪০ জন, ছেলে ২৪ মেয়ে ১৬ জন। প্রশিক্ষণের শেষ দিনে অংশগ্রহনকারীরা সিদ্ধান- নেয় তারা তাদের নিজেদের বিকাশে ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাব গড়ে তুলবে, যেখানে তারা পাঠচক্রের মাধ্যমে নিজেরা নিজেরা শিখবে। এরকম প্রত্যন্ত অঞ্চলে ইংরেজী ভাষায় দক্ষ হয়ে ওঠার জন্য অন্যকোন সুযোগ তাদের নেই। কলেজ পড়ুয়া একদল তরুণদের প্রচেষ্টায় চতরা ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাবের যাত্রা শুরু হয়। তরুণদের এই প্রচেষ্টায় উৎসাহিত হয়ে ক্লাবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন পীরগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী অফিসার জনাব মোঃ আাবু রায়হান মিঞা। এই উদ্যোগকে স্বাগত জানতে এরপর ক্লাবে প্রত্যক্ষ,পরোক্ষভাবে যুক্ত হয়েছেন অনেকেই যেমন সমাজ সেবা অফিসার জনাব মোশারফ হোসেন, উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা মোঃ মুশফিকুর রহমান, চতরা বিজ্ঞান ও কারিগরি কলেজের মাননীয় অধ্যক্ষ জনাব আব্দুর রব প্রধান এবং কলেজ ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্যবৃন্দ। ক্লাবের সদস্যরা ইংরেজী শেখার প্রাথমিক উপকরণ হিসেবে বেশকিছু সহজ ইংরেজি গল্পের বই, ইংরেজিতে কথোপকথন বিষয়ক সিডি, ইংরেজি পত্রিকা ইত্যাদি সংগ্রহ করে। সপ্তাহে তিন দিন কলেজের ক্লাস শেষে ক্লাবের সদস্যরা একত্রিত হয় এবং এসকল উপকরণ ব্যাবহার করে ইংরেজি শেখার চর্চা করে। চর্চা কেন্দ্র হিসেবে কলেজের একটি রুম ব্যাবহারেরও অনুমতি মিলেছে। মাঝে, মাঝে কলেজের ইংরেজী শিক্ষক এই চর্চায় তাদের সহায়তা করছেন। ইংরেজি চর্চার পাটচক্রতে সদস্যদেরদের দেখানো হয়  ইংরেজি সিনেমা। এ্যাকটিভ সিটিজেনসদের উদ্যোগে কলেজ  অধ্যক্ষ এতটায় উৎসাহিত যে, কলেজের মূলপাঠ্যক্রমের ক্লাসের পশাপাশি সপ্তাহে একটি ইংরেজী ক্লাস চালু করেছেন। ক্লাসে শিক্ষার্থীরা ইংরেজিতে কথোপকথন, বিষয়ভিত্তিক উপস্থাপনা করে দক্ষতা বাড়াচ্ছে। কয়েকজন তরুণের ছোট্ট একটি প্রচেষ্টা দিনে দিনে সফলতার মুখ দেখতে শুরু করেছে, ৪০ জন শিক্ষার্থী এই চর্চা শুরু কররেও সকলে সমান দক্ষতা অর্জন করেনি, কেউ কেউ বেশী দক্ষ হয়েছেন, কেউ কম তাইবলে অন্যরা হার ছেড়ে দেয়নি, তারাও চালিয়ে যাচ্ছে তাদের চেষ্টা। ক্লাবের সদস্যরা বর্তমানে কলেজের সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিকট অনুকরণীয় হয়ে উঠেছে। ক্লাবের প্রত্যেকটি সদস্যসহ তাদের শিক্ষকরা আশাবাদী যে,এই সদস্যরা পাশ করে কলেজ থেকে চলে গেলেও ক্লাবটি টিকে থাকবে।

Advertisements