বিভিন্ন অঞ্চলের স্বেচ্ছাব্রতীদের সামাজিক উদ্যোগ মেলার খবর

রাজশাহীতে স্বেচ্ছাব্রতীদের উদ্যোগ মেলা

স্বেচ্ছাব্রতী সামাজিক আন্দোলনের মাধ্যমেই সমাজ পরিবর্তন করা সম্ভব। স্বাধীনতা যুদ্ধ, ভাষা আন্দোলন, ৬৯ এর গণ অভ্যূত্থান, স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন এর প্রতিটি ক্ষেত্রে স্বেচ্ছাব্রতী তরুণ সমাজের ভূমিকাই ছিল মূখ্য। ১৫ মার্চ ২০১১ দিনব্যাপী রাজশাহীর সাফাওয়াং (স্বপ্নীল আয়োজন কমিউনিটি সেন্টার) এ ব্রিটিশ কাউন্সিল ও দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-বাংলাদেশ এর সহযোগিতায় ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার রাজশাহী ও রংপুর অঞ্চলের আয়োজনে অনুষ্ঠিতব্য স্বেচ্ছাব্রতী সামাজিক উদ্যোগ মেলায় আগত অতিথিরা এ কথা বলেন। উদ্বোধনী পর্বে নারী নেত্রী জায়তুনা খাতুনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপসি’ত ছিলেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন এর সচিব (উপসচিব) কে এম আব্দুস সালাম। সুব্রত কুমার পাল, ইউসুফ আলী ও জাকিয়া ইয়াসমিন এর যৌথ পরিচালনায় মেলায় বক্তব্য রাখেন সম্মানিত অতিথি দি হাঙ্গার প্রজেক্ট বাংলাদেশ এর উপ-পরিচালক নাছিমা আক্তার জলি, বিট্রিশ কাউন্সিল এর প্রজেক্ট ম্যানেজার কাজী নাজমুল হক, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক আ.ন.ম সালেহ, দৈনিক সোনার দেশ পত্রিকার সম্পাদক অধ্যাপক ফজলুল হক, রাজশাহী মেডিকেল কলেজের সাবেক প্রফেসর মোঃ রফিকুল আলম, বিশিষ্ট সাংবাদিক মোস-াফিজুর রহমান,অধ্যাপক রোজেটি নাজনীন, বাংলাদেশ বেতারের সাবেক সহকারী পরিচালক মোঃ রেজাউল করিম, শেরিনা সরকার রোজি, অধ্যক্ষ মোস-ারী চৌধুরী প্রমূখ। মেলার মূল প্রবন্ধ উপস’াপন করেন ১৫তম জাতীয় সম্মেলন কমিটির আহবায়ক মাহমুদুল হাসান। প্রথম পর্বের আলোচনা শেষে “আমি পরিবর্তনে অঙ্গীকারবদ্ধ” শীর্ষক ব্যানারে স্বাক্ষর করেন মেলায় আগত সকল অংশগ্রহণকারী। একই সাথে অতিথিবৃন্দ মেলার বিভিন্ন স্টল পরিদর্শন করেন। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন- অনুষ্ঠানে স্বেচ্ছাব্রতীদের বিভিন্ন বার্যক্রম ছাড়াও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয় যা মেলাটিকে আরও প্রাণবন- করে তোলে। মেলায় আরও যারা উপসি’ত ছিলেন:  দি হাঙ্গার প্রজেক্ট এর রংপুর ও রাজশাহী অঞ্চলের সহকর্মীবৃন্দ, ইয়ূথ মোবিলাইজেশন ইউনিটের মামুনুর রশীদ রাদিফ, কাজি রাবেয়া এমি, ইয়ূথ এ্যাক্টিভিস্ট ও লিডার মাসুদ, তুহীন, ইউসুফ, মাহবুব, জামিল, রনি, বিভিন্ন উপজেলার স্বেচ্ছাব্রতী একদল শিক্ষার্থী, এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডার, অভিভাবক, মেন্টর, শিক্ষক, সাংবাদিকসহ স’ানীয় ও জাতীয় পর্যায়ের একদল বরেণ্য ব্যক্তি উপসি’ত ছিলেন । মেলার মিডিয়া পার্টনার ছিল দৈনিক সোনার দেশ।  

খুলনার সামাজিক উদ্যোগ মেলার সংবাদ
ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার-বাংলাদেশ খুলনা ও বরিশালের এ্যাকটিভ সিটিজেনদের যৌথ উদ্যোগে গত ১৬ মার্চ ২০১১ খুলনার সিএসএস মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় সামাজিক উদ্যোগ মেলা ২০১১ । সামাজিক উদ্যোগ মেলা প্রস’তি কমিটির আহবায়ক শাহীন মাহমুদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপসি’ত ছিলেন খুলনার জেলা প্রশাসক মোঃ জমশেদ আহমেদ খন্দকার। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপসি’ত ছিলেন দি হাঙ্গার প্রজেক্ট এর গ্লোবাল ভাইস প্রেসিডেন্ট ও বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ড. বদিউল আলম মজুমদার, ব্রিটিশ কাউন্সিলের প্রোগ্রাম ডেভলপমেন্ট ম্যানেজার ম্যাথিউ নলজ, সুজন খুলনা মহানগর কমিটির সভাপতি প্রফেসর জাফর ইমাম এবং সুজন বরিশাল কমিটির সভাপতি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আক্কাস হোসেন। এছাড়াও খুলনা ও বরিশাল অঞ্চল থেকে বিভিন্ন উপজেলার স্বেচ্ছাব্রতী একদল শিক্ষার্থী, এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডার, অভিভাবক, মেন্টর, শিক্ষক, সাংবাদিকসহ স’ানীয় ও জাতীয় পর্যায়ের একদল বরেণ্য ব্যক্তি উপসি’ত ছিলেন। মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন খুলনার জেলা প্রশাসক মোঃ জমশেদ আহমেদ খন্দকার। তিনি “আমি পরিবর্তনে অঙ্গীকারবদ্ধ” শীর্ষক ব্যানারে স্বাক্ষর ক্যাম্পেইনেরও উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-বাংলাদেশ এর খুলনা অঞ্চলের সমন্বয়কারী মাসুদুর রহমান রঞ্জু। এরপর অতিথিসহ সকলে স্টল পরিদর্শন করেন। অতিথিরা মঞ্চে আসন গ্রহণ করলে ইয়ূথ লিডাররা তাদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন। এ্যাকটিভ সিটিজেনদের সার্বিক কার্যক্রম ও সামাজিক উদ্যোগ মেলার মূল প্রবন্ধ উপস’াপন করেন মেলার যুগ্ম আহবায়ক নওরীন সুলতানা, খুলনা ও বরিশাল অঞ্চলের ইস্যুভিত্তিক সামাজিক উদ্যোগের শেয়ারিং করেন নন্দিতা ও রাশেদ। মেলায় খুলনা অঞ্চলের অর্জনের উপর ডকুমেন্টরী প্রদর্শিত হয়। খুলনা বি.এল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শংকর কুমার মল্লিক এর সঞ্চালনায় ‘নিরক্ষরতাই বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রধান অন-রায়’ শীর্ষক  বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও সুন্দরবনকে ভোট প্রদানে উৎসাহিত করণ, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং পুরস্কার বিতরণসহ নানা আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়। পুরো অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন মেলা প্রস’তি কমিটির যুগ্ম আহবায়ক মোঃ আমজাদ হোসেন রাজীব।

ঝিনাইদহে স্বেচ্ছাব্রতীদের সামাজিক উদ্যোগ মেলা অনুষ্ঠিত
গত ২৪ মার্চ ২০১১ দিনব্যাপী ঝিনাইদহের ওয়াজির আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে স্বেচ্ছাব্রতীদের সামাজিক উদ্যোগ মেলা অনুষ্ঠিত হয়। আনন্দ, উদ্দীপনা আর প্রত্যয়ের দীপ্তিতে ভাস্বর ছিলো উদ্যোগ মেলার প্রতিটি মুহূর্ত। সামাজিক উদ্যোগ মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ঝিনাইদহের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জনাব শেখ রফিকুল ইসলাম। এসময় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সামাজিক উদ্যোগ মেলার যুগ্ম আহবায়ক ও কুষ্টিয়ার ইয়ূথ এ্যাক্টিভিষ্ট মাহমুদ হাসান এবং মেলার মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন সামাজিক উদ্যোগ মেলার আহবায়ক ফারুক হোসেন শাওন। এরপর আমন্ত্রিত অতিথিরা উদ্যোগ মেলার আগত সকল অংশগ্রহণকারীদের সামাজিক উদ্যোগ সম্বলিত স্টলগুলি পরিদর্শন করেন। শেষে “আমরা পরিবর্তনে অঙ্গীকারবদ্ধ” শীর্ষক ব্যানারে তাঁরা স্বাক্ষর করেন।
স্টল পরিদর্শন শেষে ওয়াজির আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জনাব হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্ব অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপসি’ত ছিলেন ঝিনাইদহের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জনাব শেখ রফিকুল ইসলাম । বিশেষ অতিথি ছিলেন দি হাঙ্গার প্রজেক্টের ডেপুটি ডিরেক্টর (প্রোগ্রাম) জনাব নাছিমা আক্তার জলি,ঝিনাইদহ সচেতন নাগরিক কমিটির আহবায়ক ও ইউনিট উপদেষ্টা জনাব এন.এম.শাহজালাল, ঝিনাইদহ পৌরসভার মেয়র জনাব সাইদুল করীম মিন্টু এবং কাঞ্চননগর মডেল হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক জনাব বি.সি.বিশ্বাস । আরো বক্তব্য রাখেন রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দি প্রেসক্লাবের সভাপতি ও মেন্টর রঘুনন্দন সিকদার, যশোরের সুন্দলী এস.টি স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ আব্দুল লতিফ এবং গাংনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক ও স্বেচ্ছাব্রতী প্রশিক্ষক সিরাজুল ইসলাম। অতিথিরা তাঁদের বক্তব্যে বলেন ‘তারুণ্য মানেই শক্তি। তারুণ্য মানেই জীবনের জয়গান। তরুণরাই ছিনিয়ে আনবে দূর দিগনে-র সাফল্য। আমাদের সময় এরকম সুযোগ আমরা পাইনি, সেক্ষেত্রে তোমরা অনেক বেশী সৌভাগ্যবান। ব্রিটিশ কাউন্সিল ও দি হাঙ্গার প্রজেক্ট সেই  সুযোগ সৃষ্টি করেছে। এখানে এসে তোমাদের সামাজিক উদ্যোগগুলি দেখে মনে হচ্ছে কাঙ্খিত স্বদেশ আর স্বপ্ন থাকবে না, রুপ নেবে সম্ভাবনার নতুন বাস-বতায়।’ এরপর অর্জন, চ্যালেঞ্জ, উত্তরণের উপায় এবং পরবর্তী ভাবনা শীর্ষক মুক্ত আলোচনা এবং মাঝে-মাঝে চলতে থাকে আইয়ুব বাচ্চুর গান পরিবেশন ও ঝিনাইদহ অঞ্চলের অর্জনের উপর ডকুমেন্টরী দেখানো। এই পর্বটি পরিচালনা করেন ইয়ূথ এ্যাক্টিভিষ্ট তাসনিম জাহান ও অনিক ইসলাম। এরপর যুক্তিবাদী সমাজ বিনিমার্ণের লক্ষ্যে সাজ্জাদ হোসেন রিজুর সঞ্চালনায় ঝিনাইদহ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এবং মেহেরপুরের গাংনী বিতর্ক ক্লাবের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে ‘তরুণরাই সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ গড়ার প্রধান নিয়ামক’ শীর্ষক বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও সাধারণ জ্ঞান প্রতিযোগিতা, চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
সমাপনী পর্বে উপসি’ত ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আ.ত.ম. আব্দুল্লাহেল বাকীর সভাপতিত্বে উপসি’ত ছিলেন সরকারি কে.সি কলেজের গণিত বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোঃ নাজিম উদ্দিন, ঝিনাইদহ বিতর্ক ক্লাবের আহবায়ক এম. আব্বাস উদ্দিন আহমেদ এবং দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-বাংলাদেশ এর প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর মোঃ খোরশেদ আলম । সবশেষে শ্রেষ্ঠ উদ্যোক্তা ও বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়। পুরস্কার বিতরণ ও সমাপনী পর্বটি পরিচালনা করেন ইয়ূথ মোবিলাইজেশন ইউনিটের অশোক বিশ্বাস। এরপর ইয়ূথ এ্যাক্টিভিষ্ট আমিনুল, স্বপন ও মিমির পরিচালনা এবং অংকুর নাট্য একাডেমীর পরিবেশনায় চলে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও গম্ভীরা। সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে। মেলার মিডিয়া পার্টনার ছিল সাপ্তাহিক নির্বাণ।  

হবিগঞ্জে অনুষ্ঠিত সামাজিক উদ্যোগ মেলার সংবাদ
ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার-বাংলাদেশ কুমিল্লা ও সিলেট অঞ্চলের এ্যাকটিভ সিটিজেনদের যৌথ উদ্যোগে ১০ মার্চ ২০১১ হবিগঞ্জ পৌরসভা মাঠে অনুষ্ঠিত হয় সামাজিক উদ্যোগ মেলা- ২০১১ । মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক মাহমুদ হাসান। এরপর অতিথিসহ সকলে স্টল পরিদর্শন করেন। অতিথিরা মঞ্চে আসন গ্রহণ করলে ইয়ূথ লিডাররা তাঁদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন। সামাজিক উদ্যোগ মেলা প্রস’তি কমিটির আহবায়ক জিয়া উদ্দিন দুলালের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপসি’ত ছিলেন হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক মাহমুদ হাসান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপসি’ত ছিলেন দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-বাংলাদেশ এর ডেপুটি ডিরেক্টর (প্রোগ্রাম) জনাব নাছিমা আক্তার জলি, ব্রিটিশ কাউন্সিলের হেড অব কালচার, ক্লাইমেট এ্যান্ড সিটিজেনশিপের সৈয়দ মাসুদ হোসেন, হবিগঞ্জ সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আবিদুর রহমান, সুজন-হবিগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব সৈয়দ আহমেদুল হক, হবিগঞ্জ সরকারি বৃন্দাবন কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষ প্রফেসর নিখিল ভট্টাচার্য, হবিগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গফফার আহমেদ, সুজন-হবিগঞ্জ জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট ত্রিলোককানি- চৌধুরী বিজন, হবিগঞ্জ, প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাডভোকেট রুহুল হাসান শরীফ, হবিগঞ্জ টিভি জার্নালিস্ট এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি হারুনুর রশীদ চৌধুরী এবং সুজন-হবিগঞ্জ জেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এএসএম মহসিন চৌধুরী। এছাড়াও কুমিল্লা ও সিলেট অঞ্চল এর দি হাঙ্গার প্রজেক্ট এর সহকর্মীবৃন্দ, ইয়ূথ মোবিলাইজেশন ইউনিটের জি, এম, শোয়েব আহমেদ, অশোক বিশ্বাস, কাজি রাবেয়া এমি, ইয়ূথ এ্যাক্টিভিস্ট শাহীন, জামিল, রনি, রিপন, সজীব, হানিফ, ইউসুফসহ বিভিন্ন উপজেলার স্বেচ্ছাব্রতী একদল শিক্ষার্থী, এ্যাকটিভ সিটিজেনস ইয়ূথ লিডার, অভিভাবক, মেন্টর, শিক্ষক, সাংবাদিকসহ স’ানীয় ও জাতীয় পর্যায়ের একদল বরেণ্য ব্যক্তি উপসি’ত ছিলেন ।

 

Advertisements