খুলনা অঞ্চলের খবর

গত ২১ জানুয়ারি ২০১১ তারিখটা আর দশটা দিনের মত ছিল না। এ্যাকটিভ সিটিজেনদের জন্য দিনটা ছিল একদম অন্যরকম। সকাল ১০টা মধ্যে এ্যাকটিভ সিটিজেনরা মালগাজী,মংলাতে এসে উপসি’ত হলো। কারণ এই দিনটা ছিল ২৪০তম এ্যাকটিভ সিটিজেনদের ফলোআপ মিটিং। এই ফলোআপ মিটিং-এ দুটি সামাজিক উদ্যোগ নিয়ে আলোচনা হয়। যার একটি হলো গণশিক্ষা কেন্দ্র এবং অন্যটি জ্ঞানবিতান লাইব্রেরী। গণশিক্ষা কেন্দ্রের আওতায় ১০০টি নিরক্ষর পরিবারকে নিয়ে আসা হয়। এদের মধ্য থেকে ৩০ জনকে বাছাই করে তাদের নিয়ে গণশিক্ষা কেন্দ্র চালু হবে।  গণশিক্ষা কেন্দ্র আগামী সপ্তাহ থেকে চালু হবে এমন বিষয় মিটিং-এ সিদ্ধান- নেয়া হয়। এই কাজটি সার্বিকভাবে সমন্বয় করছে লিন্ডা মণ্ডল। জ্ঞানবিতান লাইব্রেরীাট মূলত ছাত্রদের উপর নির্ভর করে গড়ে উঠবে। এখানে প্রত্যেক ছাত্রকে একটি করে বই দেওয়া হবে। তারা বই পড়া শেষ করে জমা দিলে আর একটি বই দেওয়া হবে। তাছাড়াও তাদের নিয়ে প্রতি সপ্তাহে বই পড়া সম্পর্কে মতামত নেওয়া হবে। এই মতামতের ভিত্তিতে জ্ঞানবিতান লাইব্রেরীটি পরিকল্পনা গ্রহণ করবে। এই কাজটি সার্বিকভাবে সমন্বয় করছে নওরীন সুলতানা। তাছাড়াও সম্ভাব্য সমস্যা নিয়েও আলোচনা করা হয় এবং সমস্যা সমাধানের উপায়ও খুঁজে বের করা হয়।
ফলোআপ মিটিং-এ উপসি’ত ছিলেন অভিভাবক এবং মেন্টর জানে আলম বাবু। ফলোআপ মিটিংটি পরিচালনা করেন ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার-বাংলাদেশের সাবেক ন্যাশন্যাল কো-অর্ডিনেটর শাহীন মাহমুদ।
রিপোর্ট-মাসুদ পারভেজ।

লেখালেখি ও তথ্যায়ন বিষয়ক কর্মশালা

“মুক্ত কর ভয়, শক্তিশালী লেখা দিয়ে দেশ কর জয়”-এই শ্লোগানকে ধারণ করে ১৭ জানুয়ারি পাটকেলঘাটা হারুন-অর-রশিদ ডিগ্রি কলেজ ইউনিটের আয়োজনে একটি লেখালেখি ও তথ্যায়ন বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। দক্ষ সংবাদ গ্রহণ ও লেখার সমস- কাঠমো সম্পর্কে কর্মশালায় প্রাণবন- আলোচনা করা হয়। কর্মশালাটি পরিচালনা করেন অধীশ দাশ। কর্মশালাটিতে সক্রিয় ১৭ জন ইয়ূথ সদস্য অংশগ্রহণ করে। কর্মশালাটি আয়োজনে ভূমিকা পালন করেন ফারজানা আক্তার ববী ও সুমন ঘোষ।
রিপোর্ট- অধীশ দাশ

কর্মশালার মাধ্যমে ইউনিট গঠন

২২ জানুয়ারি  নগরঘাটা ইউনিয়নের কবি নজরুল বিদ্যাপীঠে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল প্রত্যাশা, প্রতিশ্রুতি এবং কার্যক্রম শীর্ষক কর্মশালা। কর্মশালায় উক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণীর মেধাবী ৩৮ জন ছাত্র-ছাত্রী স্বত:স্ফুর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন। সকলের মতামতের ভিত্তিতে সুমাইয়া ইয়াসমীন আখিকে কো-অর্ডিনেটর এবং উম্মে আম্মার জাহান আশাকে যুগ্ন কো-অর্ডিনেটর হিসেবে মনোনীত করা হয়। ইউনিটের অন্যান্য সদস্যরা হলেন মেহেদী,ওমর,ইতু,আলী হোসেন, বিকাশ, অনিমা, ফারহাদ, জুয়েল, মোতাহের, মুসলিমা,ওয়াসিম চম্পা, চন্দনা এবং ফাইমা। কর্মশালাটি পরিচালনা করেন অধীশ দাশ এবং তাকে সহযোগীতা করেন সালমা।
রিপোর্ট- অধীশ দাশ

Advertisements