নিরক্ষতা দূরীকরণ ও তরুণ সমাজ


‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি’- ৫২’র ভাষা আন্দোলনকে নিয়ে রচিত এই গান এখনও আমাদেরকে উজ্জীবিত করে, মনে করিয়ে দেয়, আমরাই সেই বীরের জাতি যারা বর্ণমালার জন্য রক্ত দিয়েছি এবং এই রক্তের পথ ধরেই দেশকে স্বাধীন করেছি। অথচ দুর্ভাগ্য, ভাষা আন্দোলন এবং স্বাধীনতার এতদিন পরেও আমরা বাংলাভাষার লেখ্য রূপকে সবার কাছে পৌঁছাতে পারিনি। এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, বাংলাদেশে বয়স্ক শিক্ষার হার মাত্র ৪৩% এবং ১৫ বছরের উর্দ্ধে প্রায় ৪ কোটি ৮০ লক্ষ বয়স্ক মানুষ নিরক্ষর (গণসাক্ষরতা অভিযান: আঁধার চিরে ফুটুক আলো)। এই বিরাট জনগোষ্ঠীকে নিরক্ষর রেখে আমাদের কাঙ্খিত উন্নয়ন কোনদিনই সম্ভব না। প্রয়োজন তাদের মধ্যে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দেয়া এবং স্বেচ্ছাব্রতী আন্দোলনের মাধ্যমেই তা সম্ভব, যার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গারের স্বেচ্ছাব্রতীরা। এপ্রিল ’০৮ থেকে গণশিক্ষা আন্দোলন সমন্বয় কমিটির সাথে যুক্ত হয়ে আমাদের স্বেচ্ছাব্রতীরা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবার এই কাজটি শুরু করেছে যার নেতৃত্ব দিচ্ছে বিশিষ্ট সমাজ বিজ্ঞানী ও অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক আনিসুর রহমান। আমাদের এ আন্দোলনের উদ্দেশ্য, সকল অক্ষরজ্ঞানহীন মানুষকে সাক্ষরতা দান করা। এ সাক্ষরতা প্রকৃত অর্থেই সাক্ষরতা (পড়তে ও লিখতে শেখা), কেবল স্বাক্ষরতা (অর্থাৎ নাম সই দেওয়া) নয়। আমাদের এই সাহসী স্বেচ্ছাব্রতীদের কয়েকটি উদ্যোগের খবর আমরা নিচে তুলে ধরলাম।

আমরা করব জয়-৬৪

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s