পাঠচক্রের খবরা-খবর

আনন্দমোহন কলেজ ইউনিটের উদ্যোগে ২৮ অক্টোবর, ২০০৮ ‘ছাত্র শিক্ষক সম্পর্ক উন্নয়নে ছাত্র-ছাত্রীদের করনীয়’ শীর্ষক পাঠচক্র অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত পাঠচক্র অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আনন্দমোহন কলেজ ইউনিটের কো-অর্ডিনেটর সব্যসাচী সরকার। এই পাঠচক্রের মাধ্যমে অংশগ্রহনকারীরা ছাত্র শিক্ষক সম্পর্ক কিভাবে উন্নত করা যায় সেই দিক নির্দেশনা পায় এবং আনন্দমোহন কলেজে শিক্ষার মান উন্নয়নে ছাত্র শিক্ষক মতবিনিময় সভার আয়োজন করার সিদ্ধান্ত নেয়।

৩ নভেম্বর, ২০০৮ তারকা ইউনিটের আয়োজনে পাওটানা হাটের কাশিয়াবাড়ী দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার চত্বরে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ছোট গল্প হৈমন্তী গল্পকে কেন্দ্র করে একটি পাঠচক্র অনুষ্ঠিত হয়। পাঠচক্রের শুরুতেই উপস্থিত সকলকে কো-অর্ডিনেটর আবু রায়হান স্বাগত জানান। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইয়ূথ লিডার সাধনা রানী। প্রবন্ধ উপস্থাপনের পর মুক্ত আলোচনায় উপস্থিত সকলেই অংশগ্রহণ করেন। শেষ হইয়াও হইল না শেষ- জীবন বাস্তবতার এই বিষয়বস্তুর আলোকে গল্পের সাহিত্যরস সম্পর্কে আলোকপাত করেন ইয়ূথ লিডার আল ইমরান। পাঠচক্রটি পরিচালনা করেন শহিদুল ইসলাম সাজু।

এদিকে ব্রাহ্মণশাসন সমাজ কল্যাণ যুব সংঘের অস্থায়ী কার্যালয়ে ৯ নভেম্বর ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলা ইউনিটের উদ্যোগে ‘জাতীয় নির্বাচনে ছাত্র-ছাত্রীদের ভূমিকা’ বিষয়ে পাঠচক্র অনুষ্ঠিত হয়। পাঠচক্রের আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন অধ্যাপক মাঈন উদ্দিন ভূইয়া, আপেল মাহমুদ, মহসিন খান, আঃ হালিম এবং ইয়ূথ এক্টিভিস্ট এম. আর. হাসান রাশিদ। পাঠচক্রটিকে সফল করতে কামরুল, রত্না, রাকিবুল, কাকলী, হাসান ও মুনা বিশেষ ভূমিকা পালন করেন।

বেগম বদরুন্নেছা সরকারী মহিলা কলেজ ইউনিটের আয়োজনে ১৪ নভেম্বর, ২০০৮ সকাল ১০টায় ২৫ জন সদস্যের উপস্থিতিতে একটি পাঠচক্র অনুষ্ঠিত হয়। পাঠচক্রের বিষয় ছিল ‘ঘানি’ চলচ্চিত্র। পাঠচক্রের শুরুতেই চলচ্চিত্রটি প্রদর্শন করা হয়। এরপর চলচ্চিত্রটিকে ঘিরে উপস্থিত সকলেই তাদের মতামত প্রদান করেন। পাঠচক্রটির আয়োজনে বিশেষ ভূমিকা পালন করেন ইয়ূথ লিডার লিপি, বকুল বমর্ণ, মীম ও স্নিগ্ধা।

গত ১৬ নভেম্বর, ২০০৮ ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার পাটকেলঘাটা হারুন-অর-রশিদ কলেজ ইউনিটের আয়োজনে ‘আমাদের জাতীয় সঙ্গীত ও রবীন্দ্রনাথ’ শীর্ষক একটি পাঠচক্র অনুষ্ঠিত হয়। পাঠচক্রে ইউনিট সদস্য ও কলেজের প্রায় ৭৫ জন ছাত্র-ছাত্রী অংশগ্রহণ করেন। অংশগ্রহণকারিদের অনুরোধে কবিতা পাঠ করেন অধীশ দাশ। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাহিত্য ও সংস্কৃতি সংগঠন ‘মানব’ এর প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক বীরেন্দ্রনাথ মাহাতা। তিনি বলেন, ‘আমাদের স্বাধীনতা এসেছে, কিন্তু স্বাধীনতা রক্ষার প্রেমিক-প্রেমিকা হারিয়ে গেছে; সকলে এক হয়ে এ দেশকে রক্ষা করতে হবে, এ দেশ আমাদের সকলের। পাঠচক্র আয়োজনে ভূমিকা পালন করেন অধীশ দাশ, তৃষ্ণা, সুমা, হোসনে আরা, মহুয়া, জেসমিন, রমা, টুটুল ও ইকবাল।

‘বাঁচতে হলে জানতে হবে, জানাতে হবে’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে ১ ডিসেম্বর, ২০০৮ সরকারী এডওয়ার্ড কলেজ ইউনিটের আয়োজনে একটি পাঠচক্র অনুষ্ঠিত হয়। পাঠচক্রের বিষয় ছিল ‘এইডস: সভ্যতার বিপর্যয়’। প্রায় ২০ জন ছাত্র-ছাত্রী পাঠচক্রে অংশগ্রহণ করেন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইয়ূথ লিডার সেলিম হাসান। প্রবন্ধে এইডস কি, এইডসের লক্ষণ, বর্তমান পরিস্থিতি, প্রতিরোধ ব্যবস্থা ইত্যাদি বিষয়াদি প্রতিফলিত হয়। মুক্ত আলোচনায় সকলেই অংশগ্রহণ করেন। বিশ্ব এইডস দিবসে এইডসের বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত ও সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।
গত ২ ডিসেম্বর আনন্দমোহন কলেজ ইউনিটে ‘মার্কিন নির্বাচন ও গণতন্ত্র’ শীর্ষক এক পাঠচক্র অনুষ্ঠিত হয়। ইউনিট যুগ্ম কো-অর্ডিনেটর নাসিমা আক্তার এতে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন। পরে সবাই মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহণ করে।

রিপোর্ট: আব্দুল্লাহ আল মামুন (সুমন), লিপি আক্তার, অধীশ দাশ, কামরুল হাসান, ত্বন্বী, একে মানিক ও আল ইমরান।

আমরা করব জয়৬৫

Advertisements

One comment

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়েছে।