ফলোআপসহ বিভিন্ন সভার খবরা-খবর

১০-১০-০৮ মাসিক মিটিং দিনটি ছিল শুক্রবার। ঘুম থেকে উঠেই দেখি আমার বাড়ির সামনে নাছিম, আলিকুল, সীমা, তিথি, লিনা, মামুন, জাহিদ, কাকলি, সানজিদা, রিনি, জেসমিন, শাকিল, ইমরান দাঁড়িয়ে জিজ্ঞাসা করলাম কি ব্যাপার এত সকালে তোমরা? নাছিম বলল, বস ৯টা বাজে আজকে না মাসিক মিটিং? তারপর মনে পড়ল আজতো এ মাসের ২য় শুক্রবার! প্রতিমাসের ২য় শুক্রবার আমরা কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যরা মাসিক মিটিং করে থাকি। তারপর নাস্তাকরে আলোচনা শুরু করলাম। বেশকিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হল এবং ঈদ উৎসবের হিসাব বুঝিয়ে দেওয়া হল। সিদ্ধান্ত বলতে কিছু নতুন ইউনিট গঠন করা, ক্যাম্পেইন করা ইত্যাদি কার্যক্রম।

ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত আত্মনির্ভরশীল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে স্বেচ্ছাব্রতী ছাত্র সংগঠন ‘ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার-বাংলাদেশ’ এর উদ্যোগে গত ২৯-৩০ অক্টোবর চারঘাট, উপজেলাস্থ থানাপাড়া সোয়লেজ ট্রেনিং সেন্টারে অনুষ্ঠিত হলো রাজশাহী অঞ্চলের ৮টি জেলার সমন্বয়ে আঞ্চলিক সমন্বয় সভা। এতে ৮ জেলার অন্তর্গত বিভিন্ন উপজেলার প্রায় ২৩টি ইউনিটের ৪২জন সক্রিয় ইয়ুথ সদস্য অংশগ্রহণ করে। সভায় রাজশাহী অঞ্চলের বিভিন্ন ইউনিটের বিগত তিনমাসের কর্মকাণ্ডের অভিজ্ঞতা বিনিময়, মিসিং এবং আঞ্চলিক প্রভাব নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়। এছাড়াও জাতীয় সম্মেলন এবং আগামী বছরের সম্ভাব্য কর্মকাণ্ড স্বল্প মেয়াদী ও দীর্ঘ মেয়াদী কর্ম পরিকল্পনাও লিপিবদ্ধ করা হয়।

গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে গত ৩০ শে অক্টোবর ফলোআপ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় পরবর্তী লিডার্স ট্রেনিং এর বিষয়ে আলোচনা করা হয়। ফলোআপ সভাটি পরিচালনা করেন ইয়ূথ এক্টিভিস্ট জামিল।- জামিল আকতার

গত ১ নভেম্বর নেত্রকোনা সরকারী কলেজ ইউনিটের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় নেত্রকোনা সরকারী কলেজ ইউনিট ছাড়াও জেলা সদরের সকল ইউনিট থেকে প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করে। সভায় গত এক মাসের কার্যক্রমের বিশ্লেষণ এবং আগামী এক মাসের কার্যক্রমের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়। মাসিক সভাটি পরিচালনার ক্ষেত্রে ভূমিকা পালন করেন ইয়ূথ লিডার শাহজাহান কবির, তামান্না আক্তার, সোনিয়া আক্তার, রান্না, রৌদ্র ও টপি আক্তার। এছাড়াও গত ১ ডিসেম্বর, ২০০৮ নেত্রকোনা সরকারী কলেজে আগামী ত্রয়োদশ জাতীয় সম্মেলনকে কেন্দ্র করে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়।

গত ৬ নভেম্বর নাসিরনগর কলেজ ইউনিটে ত্রৈমাসিক সমন্বয় সভার আয়োজন করেন। নাসিরনগর ডিগ্রী মহাবিদ্যালয়ের ১০৬ নং কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। ত্রয়োদশ জাতীয় সম্মেলন কমিটির সদস্য মোঃ আঃ হালিমের সভাপতিত্বে সভায় বিগত দিনের কার্যক্রম নিয়ে আলোচনা করা হয়। কার্যক্রম পর্যালোচনায় হিমেল আহম্মদ শ্রাবণ বলেন আমরা আর পিছিয়ে পড়ে থাকতে চাই না, সারা বাংলাদেশের অন্যান্য সক্রিয় ইউনিটের মত আমরাও আমাদের ইউনিটকে সক্রিয় ইউনিট হিসেবে আজীবন ধরে রাখব। ইউনিটের নতুন সদস্য মোঃ উজ্জল বলেন- আপনারা যদি দায়িত্ব হস্তান্তর করেন তাহলে আমরা অবশ্যই আমাদের ইউনিটকে একটি অন্যতম ইউনিট হিসেবে বাংলাদেশে স্থান করে নেব। এই ত্রৈমাসিক সমন্বয় সভাটি সফল ও সার্থক করে তুলতে সহায়তা করেন শরীফ মিয়া, শাখাওয়াৎ, মুন্না প্রমূখ।

গত ১০ নভেম্বর ময়মনসিংহের আনন্দমোহন কলেজ ইউনিটের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ইউনিটের ৪৫ জন সদস্য অংশগ্রহণ করেন। ইউনিট কো-অর্ডিনেটর সব্যসাচী সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় বিগত দিনের কার্যক্রম নিয়ে আলোচনা করা হয়। সেই সাথে পরবর্তী মাসের জন্য পরিকল্পনা নেয়া হয়। পরিকল্পনার উল্লেখযোগ্য কাজগুলো হচ্ছে- পাঠচক্র, মানসম্মত শিক্ষা নিয়ে মত বিনিময় সভা, সাংবাদিক বিষয়ক প্রশিক্ষণ, সচেতনতামূলক সাইকেল র্যালি‌ ও জাতীয় সম্মেলনে অংশগ্রহণ। ইয়ূথ এক্টিভিষ্ট এ. কে. মানিকের পরিচালনায় এ সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন অলক সরকার, আশরাফুল জান্নাত, রোজি, মলি প্রমুখ।

গত ২৬ নভেম্বর ৬৬তম ব্যাচের ইয়ূথ লীডারদের নিয়ে একটি ফলোআপ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বিগত দিনের কার্যক্রম, নতুন কর্মকাণ্ড, কাজের গতিশীলতা নিয়ে আলোচনা করা হয়। সভায় বেগম বদরুন্নেসা সরকারী মহিলা কলেজ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা কলেজসহ আরো বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বন্ধুরা অংশগ্রহণ করেন।

গত ৪ ডিসেম্বর আনন্দমোহন কলেজ ইউনিটের মাসিক সভা কলেজ চত্বরে অনুষ্ঠিত হয়। ইউনিট কো- অর্ডিনেটর সব্যসাচী সরকারের পরিচালনায় ইউনিটের এ সভায় ৩৫ জন ছাত্র-ছাত্রী অংশগ্রহণ করে। সভায় জাতীয় সম্মেলনে অংশগ্রহণের বিভিন্ন বিষয়ে প্রস্তুতি নেওয়ার সিদ্ধান্ত ও জাতীয় সভায় গৃহীত সিদ্ধান্তসমূহ নিয়ে আলোচনা করা হয়।

রিপোর্ট:  শাহজাহান কবির, সুমন, কুলসুম আক্তার, মোস্তফা আলমগীর, রাইসুল ইসলাম অনিক ও এ. কে. মানিক।

আমরা করব জয়-৬৫

Advertisements

One comment

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়েছে।