গণিত উৎসবের খবরা-খবর

image53

৪ অক্টোবর ২০০৮ কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী থানার কুশলীবাসা গ্রামে ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গারের একতা ইউনিটের উদ্যোগে কুশলীবাসা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এক জমজমাট গণিত উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। জাতীয় সংগীত এবং গণিত জয় গানের মাধ্যমে সূচনা হয় উৎসবের। উৎসবে ১২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে প্রায় ৩৮০ জন ছাত্র-ছাত্রী অংশগ্রহণ করে। কুশলীবাসা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জনাব বদিউজ্জামান উৎসবের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন। জনাব খোন্দকার নুরুজ্জামানের সভাপতিত্বে উৎসবে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-এর স্বেচ্ছাব্রতী প্রশিক্ষক জনাব জাফর আহমদ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ইয়ূথ লিডার মাহিন ইসলাম এবং ইয়ূথ লিডার ফাহিম আবেদীন এবং অনুষ্ঠানটি সার্বিক সমন্বয়ের দায়িত্ব পালন করেন ইয়ূথ লিডার রকিবুল ইসলাম।

“গণিত নিয়ে খেলা কর বিশ্বটাকে জয় কর” স্লোগানকে সামনে রেখে ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গারের উদ্যোগে ছাত্র-ছাত্রীদের মেধা বিকাশের কার্যক্রমকে আরো বেগবান করতে কটিয়াদীতে গণিত উৎসবের এক প্রাক সভা অনুষ্ঠিত হয়। ৯ অক্টোবর কটিয়াদী আদর্শ বিদ্যা নিকেতনের প্রধান শিক্ষক জনাব নজরুল ইসলাম ফকিরের সভাপতিত্বে সভার সূচনা হয়। বৈঠকে সর্বসম্মতিক্রমে গণিত উৎসবের সম্ভাব্য অতিথিদের নাম নির্ধারণ করা হয়; সেইসাথে উৎসবটি কটিয়াদী পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে সম্পন্ন করার সিদ্ধান্তও গ্রহণ করা হয়। উপরিউক্ত সভায় ৯০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ, ৭০জন উজ্জীবক ও ৪০জন সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া বৈঠকে বিভিন্ন ইউনিটের অগ্রসর সদস্য ছাড়াও ত্রয়োদশ জাতীয় সম্মেলন কমিটির সদস্য এবং ইয়ূথ লিডার মোজাম্মেল হক, হাবিবুর রহমান বর্নালী, হাকিকত, তানিয়া, শফিক ও কামরুল উপস্থিত ছিলেন।

ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার কটিয়াদী উপজেলা ইউনিটের উদ্যোগে এবং বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড এর সহযোগিতায় গত ৩১ অক্টোবর গণিত উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলার ৫০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সহস্রাধিক শিক্ষার্থীর স্বতঃষ্ফুর্তভাবে অংশগ্রহণে উৎসবে আরও উপস্থিত ছিলেন বরেণ্য গণিতবিদ, প্রশাসনিক কর্মকর্তা, সাংবাদিক, অভিভাবক, শিক্ষক, স্বেচ্ছাব্রতী সংগঠক ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব। সকালে জাতীয় সংগীতের সাথে পতাকা উত্তোলন করেন স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মোঃ ফজলুর রহমান। এরপর শান্তির দূত শ্বেত কপোত উড়িয়ে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন পৌর মেয়র আলহাজ্ব তোফাজ্জল হোসেন খান। এছাড়া অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অধ্যক্ষ মজিবুর রহমান, ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা শামছুল হক, রফিকুল ইসলাম, শাহনাজ পারভিন, নূর মোহাম্মদ, তুরসী কান্তি রাউত, বেনী মাধব ঘোষ ও খালেক দাদ খাঁন। উৎসবের পরীক্ষা পর্ব শেষে পরিচিতি পর্ব, সাংস্কৃতিক পরিবেশনা, প্রশ্নোত্তর পর্ব ও অভিজ্ঞতা বিনিময় পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।

গত ৬ নভেম্বর, ২০০৮ সাভার দিগন্ত ইউনিটের আয়োজনে রেডিও কলোনী মডেল স্কুল এ একটি গণিত উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। উৎসবে স্থানীয় ১২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় ১০০০ জন ছাত্র-ছাত্রী অংশগ্রহণ করে। অনুষ্ঠানে উপজেলা শিক্ষা অফিসার জনাব আজিজ মোল্লা প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের পুরস্কার প্রদান করেন। সাভার বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অধ্যক্ষ জনাব মোঃ ইলিয়াস খাঁন, রেডিও কলোনী মডেল স্কুলের প্রধান শিক্ষক জনাব এইচ এম শাহ আলম, রেডিও কলোনী কল্যাণ সমিতির সভাপতি জনাব ইউনুস খান উপস্থিত থেকে অংশগ্রহণকারী ছাত্র-ছাত্রীদের উৎসাহ প্রদান করেন।

গাইবান্ধা জেলার ঐতিহাসিক পলাশবাড়ী থানায় ”গণিত নিয়ে খেলা করি, বিশ্বটাকে জয় করি” প্রতিপাদ্যে গত ০৬ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হলো এক বিশাল গণিত উৎসব। উক্ত উপজেলার ৩২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হতে ৭ শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী ৪টি ক্যাটাগরিতে এই উৎসবে অংশগ্রহণ করে। পরীক্ষা কেন্দ্র এস.এম. পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় ছাত্র-ছাত্রীদের মধুময় গুঞ্জনে মূখরিত হয়ে উঠে। পরীক্ষা কেন্দ্রে সচিবের দায়িত্ব পালন করেন পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক জনাব মোজাম্মেল হক। গণিত উৎসবে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব জাহাঙ্গীর আলম সহ-কমিশনার (ভূমি) পলাশবাড়ী থানা, গাইবান্ধা ও বিশেষ অতিথি জনাব হাসান আজিজার রহমান। পরীক্ষা চলাকালীন সকল পরীক্ষাকক্ষ পরিদর্শনকালে জনাব জাহাঙ্গীর আলম তার অনুভূতি ব্যক্ত করেন বলেন, “গণিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির একটি অংশ, ব্যক্তি জীবনে এটিই প্রথম অভিজ্ঞতা; এরকম একটি উৎসবে অংশহগ্রহণ করার সুযোগ পেয়ে জানার পরিধি আরও বেড়েছে, তাই নিজেকে ধন্য মনে করছি”। পরীক্ষা শেষে শিক্ষার্থীদের মুক্ত আলোচনা ও প্রশ্নোত্তর পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শেষে বিজয়ীদের মাঝে প্রধান অতিথি জনাব জাহাঙ্গীর আলম সনদপত্র ও পুরস্কার বিতরণ করেন। উক্ত গণিত উৎসবটি আয়োজন করে সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজন এবং স্থানীয় ইয়ূথ সদস্যবৃন্দ। উক্ত অনুষ্ঠানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন জনাব মোজাম্মেল হক, সভাপতি (সুজন), মমতাজ হোসেন প্রধান শিক্ষক, এস.এম. পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, নীহারেন্দ্র চৌধূরী, আঃ বারী, আবু রেজা গোলাপ, শাহেদুর রহমান (উজ্জীবক), জাহেদুল ইসলাম (অনুঘটক), আব্দুল মান্নান সরকার (উজ্জীবক), আজিজার রহমান সহ-সভাপতি (সুজন), মান্নাফ হোসেন, মাহমুদা বেগম, মোসাহেদূল ইসলাম ও স্থানীয় ইয়ূথ সদস্যবৃন্দ এবং সম্পূর্ণ গণিত উৎসবটি সমন্বয় করেন ইয়ূথ লিডার ফরিদ-উজ-জামান ও ইয়ূথ এক্টিভিস্ট হাসানুর রহমান হাসান।

গত ৭ নভেম্বর, ২০০৮ ময়মনসিংহ প্রতিভা ইউনিটের আয়োজনে লেতুমণ্ডল উচ্চ বিদ্যালয়ে একটি গণিত টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়। টুর্নামেন্টে ৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১৬টি দলে ১৭৬ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। টুর্নামেন্টে অতিথি হিসেবে স্বেচ্ছাব্রতী প্রশিক্ষক জনাব অরবিন্দ পাল, লেতুমণ্ডল উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য জনাব আব্দুল গণি, ছোরহাব হোসেন, মোঃ মজিবর রহমান, মকবুল হোসেন ও প্রমোদ চন্দ্র ভৌমিক উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের পুরস্কৃত করেন এবং অংশগ্রহণকারীদের উৎসাহ প্রদান করেন। পুরো টুর্নামেন্টে সমন্বয়কারীর দায়িত্ব পালন করেন রেজা হাসান ত্বকি ও এ কে মানিক।


untitled-7
গত ৭ নভেম্বর, ২০০৮ শলুয়া ইউনিটের আয়োজনে শলুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে একটি গণিত উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। উৎসবে ১৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৫৭০ জন ছাত্র-ছাত্রী অংশগ্রহণ করে। শলুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্রী ব্রজেন্দ্রনাথ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে উৎসবে প্রধান অতিথি হিসেবে বিশিষ্ট সমাজ সেবক, শলুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সাবেক সভাপতি জনাব শাহ মোহম্মদ গোলাম মোস্তফা উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের পুরস্কার ও উৎসাহ প্রদান করেন। অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন মোঃ বেনজির আহমেদ, রেজাউল করিম, ইমদাদুল হক ও জয়নাল আবেদিন।

এক নজরে যে সকল স্থানে অক্টোবর-ডিসেম্বর মাসে গণিত উৎসব সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে তার তালিকা:

অনুষ্ঠিত হবার তারিখ স্থানের নাম অংশগ্রহণকারীর সংখ্যা (ছাত্র-ছাত্রী) আয়োজক
০৪.১০.০৮ কুশলীবাসা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কুমারখালী, কুষ্টিয়া প্রায় ৫০০ জন একতা ইউনিট
১৭.১০.০৮ সরদহ উচ্চ বিদ্যালয়, সরদহ, রাজশাহী প্রায় ৬০০ জন সরদহ ইউনিয়ন ইউনিট
৩১.১০.০৮ কটিয়াদি, কিশোরগঞ্জ প্রায় ১৪৫০ জন ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার
০৬.১১.০৮ এস.এম পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, পলাশবাড়ী, গাইবান্ধা প্রায় ৭৫০ জন সুজন
০৬.১১.০৮ লেতুমন্ডল উচ্চ বিদ্যালয়, ময়মনসিংহ প্রায় ২০০ জন প্রতিভা ইউনিট
০৬.১১.০৮ সাভার রেডিও কলোনী মডেল স্কুল, সাভার, ঢাকা প্রায় ৯০০ জন সাভার দিগন্ত ইউনিট
০৭.১১.০৮ শলুয়া উচ্চ বিদ্যালয়, শলুয়া, রাজশাহী প্রায় ৫৫০ জন (১২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান) শলুয়া ইউনিট
০৬.১২.০৮ সিলেট প্রায় ২৫০ জন ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার

রিপোর্ট: ফরিদ- উজ-জামান, সুমন, মাহিন, মোজাম্মেল হক, সোহেল মাহমুদ ও এ কে মানিক।

আমরা করব জয়-৬৫

Advertisements

One comment

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়েছে।