পাঠচক্র সংবাদ

গত ২৭ জুলাই, ২০০৮ ঢাকা সিটি ইউনিটের আয়োজনে দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-এর সেমিনার রুমে একটি পাঠচক্র অনুষ্ঠিত হয়। পাঠচক্রটি ছিল একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের উপর। চলচ্চিত্রটি ছিল মোরশেদুল ইসলাম পরিচালিত ‘চাকা’ – যার মূল গল্প লিখেছেন প্রয়াত নাট্যকার সেলিম আলদীন। চলচ্চিত্রটি দেখার পরে এর বিষয়বস্তু নিয়ে অংশগ্রহণকারী ইয়ূথ বন্ধুরা আলোচনায় অংশগ্রহণ করে। পাঠচক্রে ঢাকা সিটি, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, তিতুমীর কলেজ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও বদরুন্নেছা কলেজ ইউনিটের বন্ধুরা অংশগ্রহণ করে। এছাড়া উপরিউক্ত পাঠচক্রে দি হাঙ্গার প্রজেক্টের ডেপুটি ডিরেক্টর নাছিমা আক্তার জলি ও প্রোগ্রাম ম্যানেজার স্বপন কুমার সাহা উপস্থিত ছিলেন। পাঠচক্রটি আয়োজনের ক্ষেত্রে মূল ভূমিকা পালন করেন মারুফ, জামিল, লিপি, মামুন, রনজিৎসহ আরো অনেকে।

“মেধা বিকাশই হোক ছাত্র সামজের মূল লক্ষ্য” – এই স্লোগানকে সামনে রেখে ৭ই জুলাই পাবনার সরকারি এডওয়ার্ড কলেজ ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার ইউনিট কর্তৃক আয়োজন করা হয় পাবনা জেলার ইতিহাস সম্পর্কিত এক বিশেষ পাঠচক্র। এতে অংশগ্রহণ করে সরকারি এডওয়ার্ড কলেজের ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ। পাঠচক্রে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ৪র্থ বর্ষের ছাত্র মোঃ সাহাবুদ্দিন বাবু। প্রবন্ধে পাবনা জেলার অবস্থান, ভৌগলিক পরিচিতি, নদ-নদী, ঐতিহাসিক ইমারত, মসজিদ, মন্দির, মাজার, নীলকুঠি, জমিদার বাড়ি, প্রশাসনিক ভবন ইত্যাদির মাধ্যমে তৎকালে বিরাজমান জনজীবন ও আর্থসামাজিক অবস্থার চিত্র প্রতিফলিত হয়। প্রবন্ধ পাঠ শেষে মুক্ত আলোচনা হয়। এরপর অংশগ্রহণকারীরা গ্রুপভিত্তিক পাবনা জেলার পরিচিতি ও ইতিহাস সম্পর্কে আলোচনা করে। এ পর্বে তারা এ সকল ঐতিহ্য পরবর্তী প্রজন্মকে জানাতে এবং এসবের সংরক্ষণে করণীয় চিহ্নিত করেন অংশগ্রহণকারীরা। একইসাথে তারা ইতিহাস ও ঐতিহ্যের সংরক্ষণে সরকারকে আশু পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানান।

“আমার ক্যাম্পাসে কিছু ফলজ ও ঔষধী গাছ রোপন করি” – এই স্লোগানকে কেন্দ্র করে এ্যাডভোকেট আব্দুর রহমান কলেজ ক্যাম্পাসে ফলজ ও ঔষধি বৃক্ষরোপণ অভিযান পরিচালিত হয়। গত ২৭ আগস্ট অনুষ্ঠিত এই অভিযান শেষে এর গুরুত্ব বর্ণনা করেন কলেজ অধ্যক্ষ আখতারুজ্জামান এবং শিক্ষক প্রতিনিধি জাহাঙ্গীর হোসেন। এরপর সকাল ১১.৩০টায় কলেজ চত্বরে একটি পাঠচক্র অনুষ্ঠিত হয়। পাঠচক্রের বিষয় ছিল বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘সোনার তরী কবিতা’। পাঠচক্রে কলেজ ইউনিটের ছাত্র-ছাত্রীসহ ইউনিটের সকল উপদেষ্টা উপস্থিত ছিলেন। উপদেষ্টাদের মধ্যে কলেজের বাংলার প্রভাষক মোঃ ফারুক হোসেন এবং জনাব মনজুরুল কাদির ‘সোনার তরী’ কবিতার মর্মকথা তুলে ধরেন। পরে পাঠচক্রের গুরুত্ব সম্পর্কে আলোকপাত করে সমাপণি বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক আখতারুজ্জামান।

নিজের জ্ঞানের পূর্ণবিকাশে পাঠচক্রের ভূমিকা অনস্বীকার্য, আর এ প্রত্যয়কে সামনে রেখে গত ২৯ আগস্ট নোয়াখালী শহীদ মিনার চত্বরে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল শহর ইউনিটের উদ্যোগে একটি বিশেষ পাঠচক্র। পাঠচক্রের বিষয় ছিল “রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জীবনী”। এতে মূল প্রবন্ধ তৈরি করেন তিশা ও রোজি। পাঠচক্রটি পরিচালনা করেন শুভ্র মিজান। প্রবন্ধ পাঠের শেষে প্রতিটি সদস্যের অংশগ্রহণমূলক মতামত থেকে কবিগুরুর জীবনের উল্লেখযোগ্য তীর্থগুলো সুস্পষ্ট হয়ে উঠে। আর এ তীর্থ জ্ঞানের সাগরে পাড়ি জমায় রবীন্দ্র পিপাসুরা।

কাসিয়ার ইউনিটের আয়োজনে গত ২ সেপ্টেম্বর ‘বাংলা ভাষা’ বিষয়ে একটি পাঠচক্র অনুষ্ঠিত হয়। মাদ্রাসা ক্যাম্পাসে বেলা ১২ ঘটিকায় পাঠচক্র শুরু হয় কোরআন তেলওয়াতের মাধ্যমে। এতে ইউনিটের সকল সদস্য অংশগ্রহণ করেন। পুরো অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনার দায়িত্ব পালন করেন ইউনিটের কো-অর্ডিনেটর আরিফ। পাঠচক্রে কাসিয়ার ইউনিটের সাথে করিমগঞ্জ সদর ইউনিটের শফিক ও ১৩তম জাতীয় সম্মেলন কমিটির সদস্য দেওয়ান এনায়েত উপস্থিত ছিলেন। পাঠচক্রটির আয়োজন করেন নাদিরা, তুহিন ও শিরিন। অনুষ্ঠানে সকলকেই যত্ন সহকারে বাংলা ভাষা জানার ও তা বিকৃত রূপে প্রয়োগ না করার অনুরোধ জানানো হয়।

– রিপোর্ট: জামিল, মোঃ মাহমুদুল হাসান, মোঃ ফারুক হোসেন, রোজী ও নাজমুল আলম তুহিন।

আমরা করব জয়-৬৪

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s