সুনামগঞ্জ বন্যা সম্পর্কিত জরিপ: একটি ভিন্ন অভিজ্ঞতা

সিলেট জেলার সুনামগঞ্জ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ একটি জনপদ। সুনামগঞ্জের বন্যা পরিস্থিতি দেশের অন্যান্য এলাকা থেকে ভিন্ন। প্রকৃতির মমতাহীন গর্জন আর পাহাড়ী ঢল এ জেলার মানুষকে সীমাহীন দূর্ভোগে ফেলে দেয়। বন্যায় প্রতিবছর এখানে অনেক পরিবারকে করে ছিন্ন ভিন্ন। অতি আদরে লালিত পালিত গবাদি পশু ভাসিয়ে নিয়ে যায়। মা তার সন্তানকে নিয়ে আশ্রয় খুঁজে পায় না। আশ্রয় নিতে হয় উঁচু পাকা সড়কে।

এমতাবস্থায় গত এপ্রিলে ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গার-বাংলাদেশের পক্ষ থেকে একটি জরিপ পরিচালনায় অংশগ্রহণ করে আমার বিরল অভিজ্ঞতা হয়েছে। জরিপের উদ্দেশ্য – বন্যার স্থায়ী সমাধান খুঁজে বের করা। এ সকল তথ্য গবেষণায় ব্যবহার করা হবে। গবেষণা পরিচালনা করবেন অধ্যাপক মোজাফফর আহমেদ।

এ কাজে জালালাবাদ ইউনিট থেকে সাঈদ আহমদ হাসান, একতা ইউনিটের সালেহ আহমেদ আকাশ এবং আমি অংশগ্রহণ করি। সাক্ষাৎকার গ্রহণকালে অনেকেই আমাদের সাথে কথা বলতে অস্বীকৃতি জানায়। তাদের বক্তব্য, “আমাদের কেউ নেই, আমরা এদেশের মানুষ নই, আমরা সুখী হওয়ার স্বপ্ন দেখি না, আমরা দুঃখ নিয়েই বাঁচতে চাই। আপনারা আমাদের বক্তব্য নিয়ে গিয়ে কিছুই করবেন না। আপনারা সরকারের দালাল।

ইউনিয়ন পরিষদে তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে চেয়ারম্যান ও সচিব কোন তথ্যই প্রদান করে নি। তারা বললেন, বন্যায় আমাদের সকল কাগজপত্র নষ্ট হয়ে গিয়েছে। ফলে তারা কতগুলো মৌখিক উপাত্ত সরবরাহ করে। যেগুলোর মধ্য দিয়ে প্রকৃত চিত্র তুলে আনা মুশকিল। এমনি বিরূপ পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে আমরা কাজ করার চেষ্টা করেছি। আমাদের মনে একটাই প্রত্যাশা সত্যিকার কষ্টভোগী মানুষের জন্য কিছু করা। তাদের দুঃখ দূর্দশা আমাদের হৃদয় ছুঁয়েছে। আমরা চাই প্রকৃতই তাদের কষ্ট লাঘব হোক।

– আব্দুল আলিম শাহ্

আমরা করব জয়-৪৭

Advertisements